কলম্বিয়ায় ক্ষেপণাস্ত্র, কয়েক হাজার গ্রেনেড ও লাখ লাখ বুলেট চুরি

আপডেট: মে ১, ২০২৪, ৫:৩৮ অপরাহ্ণ

কলম্বিয়ায় ক্ষেপণাস্ত্র, কয়েক হাজার গ্রেনেড ও লাখ লাখ বুলেট চুরি

সোনার দেশ ডেস্ক:


কলম্বিয়ার সামরিক বাহিনী বেশ কয়েকটি ক্ষেপণাস্ত্রের পাশাপাশি হাজার হাজার গ্রেনেড এবং লাখ লাখ বুলেট হারিয়ে ফেলেছে।
দেশটির সামরিক বাহিনীর সদস্যরা চুরি করে এসব অস্ত্রশস্ত্র বিক্রি করে দিয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে।
বুধবার (১ মে) আন্তর্জাতিক বার্তাসংস্থা রয়টার্সের এক প্রতিবেদনে এই তথ্য উঠে এসেছে।

বিবিসির ওই প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, কলম্বিয়ার প্রেসিডেন্ট গুস্তাভো পেট্রো জানিয়েছেন, তার দেশের সেনাবাহিনী লাখ লাখ বুলেট, হাজার হাজার গ্রেনেড এবং বেশ কিছু ক্ষেপণাস্ত্র হারিয়ে গেছে। চলতি বছরের ১২ ফেব্রুয়ারি এবং ১ এপ্রিল যথাক্রমে টোলেমাইদা এবং লা গুয়াজিরা নামের দুটি সামরিক ঘাঁটিতে আকস্মিক পরিদর্শনের সময় এসব অস্ত্রশস্ত্র নিখোঁজ হওয়ার বিষয়টি ধরা পড়ে।

গুস্তাভো জানিয়েছেন কি পরিমাণ অস্ত্র হারিয়েছে। তিনি বলেছেন, টোলেমাইদা সামরিক ঘাঁটিতে অফিশিয়াল রেকর্ডের তুলনায় আট লাখ আট হাজারেরও বেশি বুলেট এবং প্রায় দশ হাজার গ্রেনেডের ঘাটতি পাওয়া গেছে। অন্যদিকে লা গুয়াজিরা ঘাঁটিতে প্রায় ৪২ লাখ বুলেট এবং ৯ হাজার ৩০০টিরও বেশি গ্রেনেড পাওয়া যায়নি।
প্রেসিডেন্ট পেট্রো আরও বলেছেন, এই সামরিক ঘাঁটি থেকে দুটি স্পাইক ক্ষেপণাস্ত্র, ৩৭টি নিমরোড ক্ষেপণাস্ত্র এবং ৫৫০টি রকেটচালিত গ্রেনেডও হারিয়ে গেছে।

এসব অস্ত্রশস্ত্র হারিয়ে যাওয়ার বিষয়ে অভ্যন্তরীণ দুর্নীতিকে দায়ী করেছেন প্রেসিডেন্ট গুস্তাভো। তিনি দাবি করেছেন, সামরিক বাহিনীর কর্মীরা অস্ত্র ব্যবসায়ীদের কাছে এসব অস্ত্র বিক্রি করেছে। মঙ্গলবার প্রেসিডেন্ট গুস্তাভো পেট্রো এক সংবাদ সম্মেলনে বলেন, অস্ত্রশস্ত্রের এই ধরনের ঘাটতির একমাত্র কারণ- সশস্ত্র বাহিনীর ভেতরের বিভিন্ন লোক এবং বেসামরিক ব্যক্তিদের নেটওয়ার্ক দীর্ঘকাল ধরে কলম্বিয়ান রাষ্ট্রের বৈধ অস্ত্র বাণিজ্যিকীকরণে ব্যস্ত রয়েছেন।

কোথায় বিক্রি হতে পারে এসব অস্ত্রশস্ত্র তার জবাবে তিনি সাংবাদিকদের বলেন, এসব অস্ত্রশস্ত্র কলম্বিয়ার মধ্যে সশস্ত্র গোষ্ঠীগুলোকে দেওয়া হতে পারে, আবার এটি হাইতি বা আন্তর্জাতিক কালোবাজারে পাচার করাও হয়ে থাকতে পারে।
কলম্বিয়ার প্রতিরক্ষামন্ত্রী বলেছেন, অস্ত্রশস্ত্র নিখোঁজের বিষয়ে তদন্ত চলছে।
তথ্যসূত্র: বাংলানিউজ