কাউন্সিলরা নিরক্ষর হওয়ায় ঘোষণা হলো না বাঘা পৌর যুবলীগ কমিটি

আপডেট: এপ্রিল ১৭, ২০১৭, ১২:৩২ পূর্বাহ্ণ

বাঘা প্রতিনিধি


দুইদিন ধরে মাইকিং করে সম্মেলন আহ্বান করা হয়েছিল রাজশাহীর বাঘা পৌর যুবলীগের। ব্যাপক উৎসাহ উদ্দীপনায় সমর্থকদের নিয়ে সম্মেলনে যোগ দিয়েছিলেন নেতারা। সম্মেলনের দ্বিতীয় অধিবেশনে দুইটি পদে প্রার্থীতা ঘোষণা দেয়া হয়। সভাপতি পদে তিন জন এবং সাধারণ সম্পাদক পদে প্রার্থী নয় জন। সমাঝোতায় না গিয়ে নির্বাচনও দাবি করে কেউ কেউ।
শেষে ফলাফল পাওয়া গেল অধিকাংশ কাউন্সিলরা নিরক্ষর, তাই কমিটি ঘোষণা করা হলো না। নেতাদের এমন ঘোষণায় হতাশ হয়ে ফিরে গেলেন উৎসাহিত যুবলীগ নেতারা।
দলীয় সূত্রে জানা যায়, প্রথম পর্বের বক্তব্য শেষে দ্বিতীয় পর্বে শুরু হয় কমিটির গঠনের পালা। এরপর সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক পদে মাইকে নাম প্রস্তার করা হয়। সভাপতি পদে তিন জন ও সাধারণ সম্পাদক পদে নয় জন প্রার্থীর নাম আসে। অনেক জল্পনা কল্পনার পর নির্বাচন কিংবা সমাঝোতা ছাড়াই কাউন্সিলরা নিরক্ষর বলে নাম পরে ঘোষণা করার কথা বলে সমাবেশ শেষ করে চলে যান নেতারা।
সভাপতি প্রার্থী মাজেদুল ইসলাম ও সাধারণ সম্পাদক প্রার্থী মুনির হোসেন মনি বলেন, নির্বাচনের মাধ্যমে নেতা নির্ধারণের দাবি উপেক্ষা করে জেলা যুবলীগ সভাপতি আবু সালেহ’র এমন ঘোষণার মধ্য দিয়ে সমাবেশ শেষ করা হয়। তবে রোববার জেলা থেকে কমিটি ঘোষণা দেয়ার কথা বলেছেন জেলা যুবলীগের নেতারা। ফলে হতাশা নিয়ে ফিরে যান যুবলীগ নেতাকর্মীরা।
গত শনিবার সন্ধ্যায় বাঘা মডেল উচ্চবিদ্যালয়ের বিজয় মঞ্চে বাঘা পৌর যুবলীগের সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। সম্মেলন উদ্বোধন করেন উপজেলা যুবলীগের সভাপতি কামরুজ্জামান নিপন। প্রথম পর্বের আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম। পৌর যুবলীগের আহ্বায়ক শাহীন আলম ও আড়ানী পৌর যুবলীগের সভাপতি কামরুল হাসান জুয়েলের পরিচালনায় অনুষ্ঠানে প্রধান বক্তা ছিলেন জেলা যুবলীগের সভাপতি আবু সালেহ। বিশেষ অতিথি ছিলেন বাঘা পৌর মেয়র আক্কাছ আলী, জেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক খালেদ ওয়াসি কেটু, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আশরাফুল ইসলাম বাবুল, পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি আবদুল কুদ্দুস সরকার, উপজেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক মোকাদ্দেস হোসেন, উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক নাজমুল হোসেন। উপস্থিত ছিলেন আওয়ামী লীগ নেতা আজিজুল আলম, ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান আজিজুল আযম, চারঘাট উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আনোয়ার হোসেন, অধ্যক্ষ নছিম উদ্দীন, জেলা পরিষদের সদস্য জয়জয়ন্তি সরকার মালতি প্রমুখ।