কান্দাহারে নৃশংস হামলা তালিবানের, মৃত শতাধিক আফগান

আপডেট: জুলাই ২৩, ২০২১, ৮:০৭ অপরাহ্ণ

সোনার দেশ ডেস্ক:


আফগানিস্তানে বড়সড় নাশকতা তালিবানদের। কান্দাহারের স্পিন বোলদাকে সেই হামলায় নিহত হলেন ১০০-রও বেশি মানুষ। ইতোমধ্যে এই ঘটনায় তালিবানের দিকেই আঙুল তুলেছে আফগান প্রশাসন। এই ঘটনার তীব্র নিন্দা করা হয়েছে আফগান প্রশাসনের পক্ষ থেকে।
এই প্রসঙ্গে আফগানিস্তানের অন্তর্দেশীয় দপ্তরের মুখপাত্র মিরওয়াইস স্নেনেকজাই। তিনি বলেন, ‘সন্ত্রাসবাদীরা স্পিন বোলদাকের নির্দিষ্ট কয়েকটি অঞ্চলের নিরীহ আফগানদের বাড়িঘর আক্রমণ করে এবং বাড়িঘর লুট করে ১০০ জন নিরীহ মানুষকে খুন করে। এদের আসল চেহারা উন্মোচন হল।’ জানা গিয়েছে, কান্দাহার প্রদেশ কাউন্সিলের এক সদস্যের দুই ছেলেকেও খুন করা হয়েছে। যদিও এই ঘটনার দায় অস্বীকার করেছে তালিবানরা। প্রসঙ্গত, গত সপ্তাহে আফগানিস্তানের কান্দাহার শহরে দখল নেয় তালিবানরা। সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল ভিডিওতে দেখা যায়, ওই শহরে লুটপাট চালাচ্ছে তালিবান জঙ্গিরা। ঘরবাড়ি ধ্বংস করা হয়েছে। এমনকী সরকারি দপ্তরগুলিতে ভেঙে ফেলা হচ্ছে। আফগানের নিরাপত্তা এজেন্সির তরফে জানানো হয়েছে, এখনও অনেক দেহ মাটিতে পড়ে রয়েছে।
এদিকে, সম্প্রতি আফগানিস্তান থেকে সেনা সরিয়ে নিয়েছে আমেরিকা। তবে তাতেও যে সহজে তালিবানদের রেহাই দেবে না তার স্পষ্ট ইঙ্গিত মিলল সেনার এক মুখপাত্রের কথায়। তালিবানের বিরুদ্ধে আফগান বাহিনীকে সাহায্য করতে ইতিমধ্যেই বিমানহানা শুরু করেছে আমেরিকা। গত কয়েক দিন ধরেই আফগানিস্তানের বিভিন্ন জায়গায় বিমান হামলা চালিয়েছে আমেরিকা। তরে কোথায় কোথায় এবং কী রণকৌশলে এই হামলা চালানো হয়েছে তা নিয়ে স্পষ্ট কোনও উত্তর দেয়নি পেন্টাগন। পেন্টাগনের প্রেস সেক্রেটারি জন কিরবি বলেন, “পুঙ্খানুপুঙ্খ তথ্য দিতে চাই না। তবে এটা বলতে পারি যে আমরা গত কয়েক দিনে আফগানিস্তানের বেশ কয়েকটি জায়গায় বিমানহানা চালানো হয়েছে। আফগান বাহিনীকে সহযোগিতা করার জন্য এই হামলা জারি রাখা হবে।” আফগানিস্তান থেকে আমেরিকা সেনা তুলে নিতেই গোটা দেশ জুড়ে ফের তা-ব চালাতে শুরু করেছে তালিবান জঙ্গিরা। আফগানিস্তানের ৮৫ শতাংশই তালিবানের দখলে চলে গিয়েছে। দেশের ৪০০টি জেলাকে ইতোমধ্যেই কব্জা করে ফেলেছে জঙ্গিরা। আমেরিকা সেনা তুলে নেওয়ায় কঠোর চ্যালেঞ্জের মুখে পড়তে হচ্ছে আফগান বাহিনীকে। তালিবানের হাত থেকে এলাকা উদ্ধারের চেষ্টায় লড়াই চালিয়ে যাচ্ছে তারা।
তথ্যসূত্র: সংবাদ প্রতিদিন