কাফেরকে মারতে পারলে জান্নাত পাবে এমন ধারণা থেকেই হামলা

আপডেট: মে ১৪, ২০১৭, ১২:৩৬ পূর্বাহ্ণ

গোদাগাড়ী প্রতিনিধি


একজন কাফেরকে অর্থাৎ পুলিশ সদস্যকে হত্যা করতে পারলে সর্বোচ্চ জান্নাতুল ফেরদাউস পাওয়া যাবে এমন ধারণা থেকেই একযোগে হামলা চালানো হয়েছে। গোদাগাড়ী জঙ্গি আস্তানায় আত্মসমর্পণ করা জঙ্গি সুমাইয়া আক্তার এমন তথ্য জানিয়েছেন।
আটককৃত নারী জঙ্গি সুমাইয়া আক্তার পুলিশকে জানায়, একজন কাফেরকে অর্থাৎ পুলিশ সদস্যকে মারতে পারলে তারা সর্বোচ্চ জান্নাতুল ফেরদাউস অর্জন করবে। এমন ধারণা নিয়েই বাড়ি থেকে একযোগে জঙ্গিরা বের হয়ে ধারালো অস্ত্র, বোমা ও সুইসাইড ভেস্ট বেল্ট পরে দমকল কর্মী মতিন ও পুলিশ সদস্যের উপর হামলা চালায়।
জঙ্গিদের হামলায় দমকল কর্মী মতিন নিহত হয় এবং তিন পুলিশ সদস্য আহত হয়। আহতরা হলেন, গোদাগাড়ী থানার এএসআই আহসানুল হক, জেলা গোয়েন্দা পুলিশের এএসআই উৎপল ও কনস্টেবল তাইজুল। আহসানুল হক ও তাইজুলের অবস্থার অবনতি ঘটায় তাদেরকে ঢাকা বঙ্গবন্ধু হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। এদিকে গতকাল শনিবার সকাল ১০টার দিকে গিয়ে দেখা যায় জঙ্গি আস্তানার ওই বেনীপুর গ্রামে থমথমে অবস্থা বিরাজ করছে।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ