কুটির শিল্পের মাধ্যমে ব্যাপক কর্মসংস্থান সম্ভব || অবহিতকরণ সভায় বক্তারা

আপডেট: জানুয়ারি ২৫, ২০১৭, ১২:০৬ পূর্বাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক



উদয়ন কুটির শিল্প প্রতিষ্ঠানের (ইউকেএসপি) উদ্যোগে প্রকল্প অবহিতকরণ সভায় অতিরিক্ত জেল প্রশাসক (সার্বিক) আতাউল গণি বলেছেন, শিল্প কারখানা গড়ে তুলতে মূলধন, জমি ও ব্যাপক জনবল প্রয়োজন আছে। এজন্য কারখানা গড়ে উঠবে না, তা নয়। কুটির শিল্পের মাধ্যমেই প্রতিটি বাড়িই হয়ে উঠতে পারে একটি বৃহৎ কারখানা। এতে ব্যাপক মানুষের কর্মসংস্থান সম্ভব হবে। আত্মনির্ভরশীল হওয়ার পাশাপাশি দেশের অর্থনৈতিক সমৃদ্ধিতে অবদান রাখতে পারবে। গতকাল মঙ্গলবার সকালে নগরীর পার্টি পয়েন্টে একশন এইড বাংলাদেশের সহযোগিতায় সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।
তিনি বলেন, ঘরে ঘরে কুটির শিল্পের বিস্তার করাতে পারলে আয়ের উৎসের উম্মোচন হবে। এতে অনেকের কর্মসংস্থানের ব্যবস্থাও হবে। বিশেষ করে নারীরা একটি নির্ভরযোগ্য আয়ের উৎস পাবে কুটির শিল্পের মাধ্যমে। এজন্য কুটির শিল্প বিস্তারে সরকারের পাশাপাশি সবাইকে উদ্যোগী হওয়া প্রয়োজন।
সভায় উদয়ন কুটির শিল্প প্রতিষ্ঠানের প্রধান নির্বাহী পরিচালক হাসিবা খাতুন জাহেদার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্য দেন, সমাজসেবা অধিদফতরের রাজশাহী বিভাগীয় উপপরিচালক রুবিনা ইয়াসমিন, যুব উন্নয়ন অধিদপ্তরের উপপরিচালক মতিউর রহমান, জেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা সাহানাজ বেগম, একশন এইডের প্রকল্প পরিচালক প্রিয়াংকা চাকমা, রাজশাহী সিটি করপোরেশনের (রাসিক) নারী কাউন্সিলর মমতাজ মহল, সাবেক কাউন্সিলর সুফিয়া ইসলাম।
ইয়ুথ গ্রুপের মিজানুর রহমানের পরিচালনায় উপস্থিত ছিলেন, উপদেষ্টা নয়ন মিয়াসহ নগরীর বিভিন্ন স্থানের নারী উদ্যোক্তা ও উদয়ন কুটির শিল্প প্রতিষ্ঠানের ইয়ুথ গ্রুপের সদস্যরা অংশ নেন। উল্লেখ্য, ২০০৩ সাল থেকে রাজশাহীর উদয়ন কুটির শিল্প প্রতিষ্ঠান সমাজের সুবিধা বঞ্চিত ও অসহায় নারীদের কল্যাণে কাজ করছে। কার্যক্রমের মধ্যে দর্জি বিজ্ঞান, ব্লক বাটিক, এমব্রয়ডারী ও শো-পিসসহ নানা প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা করে তাদের জীবন মানের উন্নয়নে ভূমিকা রাখছে প্রতিষ্ঠানটি। তাদের প্রকল্প সমূহ সবার মাঝে তুলে ধরতেই এই অবহিতকরণ সভার আয়োজন করা হয়।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ