কুয়েতে আড়ানির ছেলে আয়ুবের মৃত্যু ।। ১৫ দিনেও লাশ পান নি স্বজনরা

আপডেট: জানুয়ারি ১১, ২০১৭, ১২:১১ পূর্বাহ্ণ

বাঘা প্রতিনিধি



১৫ দিন আগে কুয়েতে মৃত্যু হয়েছে বাংলাদেশি শ্রমিক আয়ুব আলীর। তিনি ২৭ ডিসেম্বর কুয়েত সময় রাত সাড়ে ১২টার দিকে মৃত্যু বরন করেন। আয়ুব আলী থাকতেন কুয়েতের শিবদি থানার হিজিল ঝাকর এলাকায়। লাশ নিয়ে অনিশ্চিতার মধ্যেই রয়েছে তার পরিবার। আয়ুব আলী রাজশাহীর বাঘা উপজেলার আড়ানি পৌরসভার কুশাবাড়িয়া মহল্লার শুকুর আলীর ছেলে।
জানা যায়, আয়ুব আলী শ্রমিকের কাজ নিয়ে প্রায় ১০ বছর আগে কুয়েতে যান। সেখানে কাজ করে বৃদ্ধ বাবা মা ও স্ত্রী সন্তানের জন্য মাসে মাসে টাকা পাঠাতেন। কিন্তু চিরকালের জন্য টাকা পাঠানো বন্ধ হয়ে গেছে তার। এখন আয়ুবের পরিবার টাকা চায় না, লাশ চায়। কিন্তু গরীব পরিবারের পক্ষে সেটা সম্ভব হবে কি? এমনই প্রশ্ন বারবার ঘুরপাক খাচ্ছে পরিবারে। স্থানীয় সপ্তম শ্রেণিতে পড়–য়া একমাত্র মেয়ে তমা খাতুন বারবার বাবার কথা জানতে চাচ্ছে। কি হয়েছিল এভাবে অকালে মৃত্যু হলো তার বাবার।
আয়ুব আলীর মা ফিরোজা বেগম, স্ত্রী শুভা বেগম, ভাই লায়েব উদ্দিন, আবদুস সালাম বলেন, আয়ুবের মৃত্যুর সংবাদ পাওয়ার পর থেকে মানুষের দ্বারে দ্বারে ঘুরছি। কিন্তু লাশ ফেরত আসার ব্যাপারে ১৫ দিনেও নিশ্চিত হতে পারি নি। তাই লাশ ফেরত আনার জন্য সরকারের কাছে সহযোগিতা কামনা করছি। তবে তারা জানাতে পারে নি কিভাবে মৃত্যু হয়েছিল তার।
পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম বলেন, সরকারি খরচে আয়ুব আলীর লাশ দেশে আনার ব্যবস্থা করা হচ্ছে। পরিবারকে ধৈর্য্য ধরার আহ্বান জানান তিনি।