কেশরহাটে জনতার রোষাণলে পৌর কাউন্সিলর

আপডেট: সেপ্টেম্বর ২৯, ২০১৭, ১২:১৫ পূর্বাহ্ণ

কেশরহাট প্রতিনিধি


রাজশাহীর মোহনপুরের কেশরহাটে সবজি ব্যবসায়িকে মারধরের ঘটনায় জনতার রোষানলে পড়েন কেশরহাট পৌরসভার দুই নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর কফিল উদ্দিন। পুলিশ বিষয়টি নিরসনের আশ্বাস দিলে পরিস্থিতি শান্ত হয়।
স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, কেশরহাটে প্রতিদিনের সবজি বাজারের পাশে মাছ বাজার অবস্থিত। মাছ ব্যবসায়ীরা দীর্ঘদিন ধরে সবজি ব্যবসায়িদের সরানোর চেষ্টা করে আসছিল। সবজি বাজারের পানি নিষ্কাশনের ড্রেনটি মাছবাজারের ভেতর দিয়ে শিব নদীতে সংযুক্ত হয়েছে। মাছ ব্যবসায়ীরা পরবর্তীতে অবৈধভাবে পানির ড্র্রেনটি বন্ধ করে দিয়ে মাছের আড়ৎ স্থাপন ও মাছের ভটভটি আনা নেয়া করে। সেখানে কেশরহাট পৌরসভার ২ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর কফিল উদ্দিনেরও মাছের আড়ৎ রয়েছে। ড্রেনটি বন্ধ করে দেয়ার ফলে সামান্য বৃষ্টিতেই সবজি বাজারে জলাবদ্ধতার সৃষ্টি হয়। একাধিকবার প্রতিকারের চেষ্টা করে মাছবাজারের উচ্ছৃঙ্খল শ্রমিকদের কারণে বিষয়টি নিরসন হয় নি। গতকাল বৃহস্পতিবার দুপুরে জলবদ্ধতা সমস্যা সৃষ্টি হলে পৌর এলাকার বাকশৈল গ্রামের মুনারুল ইসলামের ছেলে সবজি ব্যবসায়ী সোহাগ আলী ড্রেনের মুখ পরিস্কার করতে গেলে কাউন্সিলর কফিল উদ্দিনসহ কয়েকজন সোহাগকে বেধড়ক পেটাতে থাকে। এসময় আবদুর রশিদ নামে অন্য এক সবজি ব্যবসায়ী এগিয়ে আসলে তাকেও মারধর আরম্ভ করে। এঘটনায় স্থানীয় জনতা ক্ষিপ্ত হয়ে কাউন্সিলরকে ঘিরে রাখে। খবর পেয়ে মোহনপুর থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে বিষয়টি মিমাংসার আশ্বাস দিলে পরিস্থিতি স¦াভাবিক হয়। মুঠোফোনে কথা বলা হলে কাউন্সিলর কফিল উদ্দিন মারপিটের কথা অস্বীকার করে।
এবিষয়ে মোহনপুর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) এসএম মাসুদ পারভেজ বলেন, টহল পুলিশ বিশৃঙ্খলা বন্ধ করে। তবে এ বিষয়ে এখন পর্যন্ত কেউ অভিযোগ করে নি। অভিযোগ পেলে তদন্ত করে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ