কেশরহাটে ভুলু ও পবায় সরকারের নির্বাচনী প্রচারণা

আপডেট: ডিসেম্বর ১৫, ২০১৬, ১১:৫৯ অপরাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক


রাজশাহী জেলা পরিষদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগ মনোনিত চেয়ারম্যান প্রার্থী মাহবুব জামান ভুলু রাজশাহীর কেশরহাট পৌরসভায় এবং প্রতিদ্বন্দ্বী চেয়ারম্যান প্রার্থী মোহাম্মদ আলী সরকার পবা উপজেলায় নির্বাচনী প্রচারণা চালিয়েছেন। গতকাল বৃহস্পতিবার বিকেল থেকে চেয়ারম্যান প্রার্থী মাহবুব জামান ভুলু রাজশাহীর কেশরহাট পৌরসভা ও মৌগাছি ইউনিয়নের প্রতিটি ওয়ার্ডে ওয়ার্ডে ভোটারদের কাছে তালগাছ প্রতীকে ভোট দেয়ার জন্য নির্বাচনী প্রচারণা করেন।
সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানান হয়, মাহবুব জামান ভুলু মোহনপুরের মৌগাছি ইউনিয়ন, জাহানাবাদ ইউনিয়নসহ সকল ইউনিয়নের ভোটারদের সঙ্গে সাক্ষাৎ, মতবিনিময় ও নির্বাচনী প্রচারণা করেন এবং ভোটারদের তালগাছ প্রতীকে ভোট দেয়ার জন্য আহ্বান জানান। এসময় মাহাবুব জামান ভুলুকে পৌরসভার মেয়র, উপজেলা ও ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যানরা ও কাউন্সিলরসহ ভোটাররা নির্বাচনে ভোট দিয়ে জয়লাভ করার আশ্বাস দেন। চেয়ারম্যান প্রার্থী ভুলু তাদের সার্বিক সহানুভূতি ও নির্বাচনী প্রচারণায় সহযোগিতার আশ্বাস দেয়ার জন্য ধন্যবাদ জানান।
নির্বাচনী প্রচারণা সময়ে চেয়ারম্যান প্রার্থী মাহবুব জামান ভুলুর সঙ্গে সার্বক্ষণিক ছিলেন, রাজশাহী মহানগর আওয়ামী লীগের সহসভাপতি নিঘাত পারভীন, সাংসদ আয়েন উদ্দিন, রাজশাহী মহানগর আওয়ামী লীগের বন ও পরিবেশ সম্পাদক নকীবুল ইসলাম নবাব, সাবেক ট্রাস্টি তপন সেন, ১০ নম্বর ওয়ার্ড আ’লীগ সভাপতি জাফর আহমেদ, মোহনপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি অ্যাডভোকেট আব্দুস সালাম, কেশরহাট পৌর মেয়র শহীদুজ্জামানসহ কাউন্সিলরবৃন্দ, মৌগাছি ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আল আমিন বিশ্বাসসহ সদস্যবৃন্দ, মোহনপুর ৬ নম্বর জাহানাবাদ ইউনিয়নের এজাজ উদ্দিনসহ সদস্যবৃন্দ, বাকশিমইল ৫ নম্বর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আল মমিন শাহ ডাবলু, মোহনপুর উপজেলার সাংগঠনিক সম্পাদক মেহেবুব হাসান রাসেল, প্রচার সম্পাদক শামসুল হক, স্বেচ্ছাসেবক লীগ সভাপতি বিন বিল্লাহ প্রমুখ।
অপর এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানান হয়, রাজশাহীর পবা উপজেলায় নির্বাচনী প্রচারণা চালিয়েছেন জেলা পরিষদ নির্বাচনের চেয়ারম্যান প্রার্থী মোহাম্মদ আলী সরকার। কর্মী-সমর্থকদের সঙ্গে নিয়ে উপজেলার ইউনিয়ন পরিষদে আনারস প্রতীকে ভোট চান। সকালেই তিনি উপজেলার হরিপুর ইউনিয়ন পরিষদে (ইউপি) যান। এ সময় তিনি ইউপি চেয়ারম্যান বজলে রেজবি আল হাসান মুঞ্জিলসহ তার পরিষদের সকল সদস্যর সঙ্গে বৈঠক করেন। এরপর মোহাম্মদ আলী সরকার হড়গ্রাম ও দামকুড়া ইউপিতে গিয়ে সেখানকার জনপ্রতিনিধিদের সঙ্গে সাক্ষাৎ করে নিজের আনারস প্রতীকে ভোট চান।
উল্লেখ্য, আগামী ২৮ ডিসেম্বর ১৫টি ভোটকেন্দ্রে সকাল ৯টা থেকে দুপুর ২টা পর্যন্ত ভোটগ্রহণ চলবে। রাজশাহী সিটি করপোরেশনসহ জেলার সবগুলো পৌরসভা, উপজেলা পরিষদ ও ইউনিয়ন পরিষদের জনপ্রতিনিধিরা এই নির্বাচনের ভোটার। মোট ভোটার সংখ্যা এক হাজার ১৭১ জন।