কোদালের বাঁটের ভেতর ১৬০০ ইয়াবা

আপডেট: September 13, 2020, 9:39 pm

নিজস্ব প্রতিবেদক:


মাদকবিরোধী অভিযান দীর্ঘদিন ধরে অব্যাহত রেখেছে আইনশৃঙ্খলাবাহিনী। তাদের তৎপরতায় মাদক ব্যবসায়ীরা বিভিন্ন কৌশল অবলম্বন করে মাদকসেবীদের কাছে পৌঁচ্ছে দিচ্ছে। রোববার এমনই একটি কৌশলের খবর পেয়েছিল নগরীর বোয়ালিয়া মডেল থানার পুলিশ। তারা নগরীতে কোদালের বাঁটের ভেতর অভিনব কায়দায় লুকানো এক হাজার ৬০০ পিস ইয়াবা উদ্ধার করা হয়েছে। এ ঘটনায় মান্টু মিয়া (৫৫) নামের এক ব্যক্তিকে গ্রেফতার করা হয়েছে। রোববার (১৩ সেপ্টেম্বর) বেলা ১১টার দিকে নগরীর শিরোইল বাসস্ট্যান্ড এলাকা থেকে তাকে গ্রেফতার করে পুলিশ। গ্রেফতার মান্টু মিয়া চাঁপাইনবাবগঞ্জের শিবগঞ্জ উপজেলার বিশ্বনাথপুর মুন্সিটোলা গ্রামের মৃত সাজেমান আলীর ছেলে।
পুলিশের দাবি, মান্টু একজন মাদক পাচারকারী। দিনমজুরের বেশে কোদালের হাতলের ভেতর লুকিয়ে ইয়াবা নিয়ে তিনি চাঁপাইনবাবগঞ্জ থেকে ঢাকায় যাচ্ছিলেন। আগে ঢাকা থেকে ইয়াবার চালান রাজশাহী-চাঁপাইনবাবগঞ্জের আসলেও, এখন উন্নতমানের ইয়াবা ভারত থেকে নিয়ে এসে ঢাকার দিকেও যাচ্ছে।
নগরীর বোয়ালিয়া মডেল থানা পুলিশের অফিসার ইনচার্জ (ওসি) নিবারণ চন্দ্র বর্মন বলেন, গোপনে সংবাদ পেয়ে তাকে গ্রেফতার করে পুলিশ। উপপরিদর্শক (এসআই) মোস্তাফিজার রহমানের নেতৃত্বে ওই অভিযানে অংশ নেন এটিএসআই নাসির উদ্দিন ও এএসআই সিরাজুল ইসলাম। তার কাছে থাকা কোদালের বাঁটের ভেতর এক হাজার ৬০০ পিস ইয়াবা পাওয়া গেছে।
ওসি আরও বলেন, বাংলাদেশে যে কয়েক ধরনের ইয়াবা পাওয়া যায় তার মধ্যে সবচেয়ে দামি মান্টুর কাছে পাওয়া ইয়াবাগুলো। এগুলোর দাম চার লাখ ৮০ হাজার টাকা। এসব ইয়াবা মান্টু কোথায় পেয়েছেন এবং কার কাছে নিয়ে যাচ্ছিলেন সে বিষয়ে তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হবে। তার বিরুদ্ধে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে মামলা হয়েছে।
ওসি নিবারণ চন্দ্র বর্মন বলেন, সোমবার সকালে তাকে আদালতে সোপর্দ করা হবে। এর আগে ব্যাপক জিজ্ঞাসাবাদ করা করে এই ইয়াবাগুলোর মূল হোতাকে বের করার চেষ্টা করা হচ্ছে। প্রয়োজনে আমরা রিমান্ডের আবেদন করবো।
এক প্রশ্নের জবাবে ওসি নিবারণ চন্দ্র বর্মন বলেন, ভালো মানের ইয়াবা এখন ভারত থেকেও সীমান্ত থেকে রাজশাহীতে অনেক প্রবেশ করছে। শুধু ইয়াবা নয়, হেরোইনও বিভিন্ন কৌশলে পাচার করা হচ্ছে। গ্রেফতারকৃত মান্টুও সে কৌশল অবলম্বন করেছিল।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ