খাদিজার অবস্থা অপরিবর্তিত।। আদালতে বদরুলের ‘স্বীকারোক্তিমূলক’ জবানবন্দি

আপডেট: অক্টোবর ৬, ২০১৬, ১২:১৩ পূর্বাহ্ণ

সোনার দেশ ডেস্ক
দুই দিন আগে সিলেটে ছাত্রলীগ নেতার ছুরিতে গুরুতর আহত কলেজছাত্রী খাদিজা বেগম নার্গিসের অবস্থা এখনও পরিবর্তন হয়নি।
সোমবার বিকালে আহত হওয়ার পর ওইদিন মধ্যরাতে খাদিজাকে ঢাকায় এনে স্কয়ার হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানে অস্ত্রোপচারের পর তাকে পর্যবেক্ষণে রেখেছেন চিকিৎসকরা।
অন্যদিকে খাদিজা বেগমকে কোপানোর মামলায় আসামি শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগ নেতা বদরুল আলম স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছেন বলে জানিয়েছে পুলিশ।

 

 

Sylhet-Khadiza
বুধবার স্কয়ার হাসপাতালের মেডিসিন অ্যান্ড ক্রিটিক্যাল কেয়ার বিভাগের পরামর্শক মির্জা নাজিম উদ্দিন বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, “খাদিজার অবস্থা আগের মতো অপরিবর্তিত আছে। ৭২ ঘণ্টা পর বোঝা যাবে আসলে তার অবস্থা কেমন।”
গত সোমবার বিকালে এমসি কলেজ কেন্দ্রে স্নাতক পরীক্ষা শেষে বের হয়ে হামলার শিকার হন সিলেট সরকারি মহিলা কলেজের স্নাতক দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্রী খাদিজা।
প্রত্যক্ষদর্শীর তথ্য অনুযায়ী, তাকে কুপিয়ে আহত করেন শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের সহ-সম্পাদক বদরুল আলম।
বদরুলকে সোমবার ঘটনার পরপরই গ্রেপ্তার করা হয়। মঙ্গলবার তাকে আসামি করে সিলেটের শাহ পরাণ থানায় মামলা করেছেন খাদিজার চাচা আব্দুল কুদ্দুস। বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ বহিষ্কার করেছে বদরুলকে।
আহত খাদিজাকে প্রথমে সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়া হলেও অবস্থার অবনতি হলে মধ্যরাতে তাকে ঢাকায় আনা হয়।
মঙ্গলবার বিকালে তার অস্ত্রোপচারের পর স্কয়ার হাসপাতালের চিকিৎসক রেজাউস সাত্তার বলেছিলেন, মাথায় মারাত্মক আঘাত পাওয়া এই কলেজছাত্রীর বেঁচে থাকার সম্ভাবনা ৫ থেকে ১০ ভাগ।
পরিস্থিতির উন্নতি হলে তার হাতসহ শরীরের অন্য জখমের জন্যে ‘অর্থোপেডিক চিকিৎসা দেয়া হবে বলে জানিয়েছিলেন নিউরোসার্জন সাত্তার।
বদরুলের জবানবন্দি সিলেটে কলেজছাত্রী খাদিজা বেগমকে কোপানোর মামলায় আসামি শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগ নেতা বদরুল আলম স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছেন বলে জানিয়েছে পুলিশ।
বুধবার বিকালে সিলেটের অতিরিক্ত মুখ্য মহানগর হাকিম উম্মে সরাবন তাহুরার আদালতে তার জবানবন্দি গ্রহণ করা হয় বলে জানান আদালত পুলিশের সহকারী কমিশনার (প্রসিকিউশন) তৌহিদুল ইসলাম।
তিনি বলেন, আদালতে ফৌজদারি কার্যবিধির ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেয়ার পর তাকে কারাগারে পাঠানো হয়েছে। এর আগে জবানবন্দিগ্রহণের জন্য বেলা ৩টার দিকে তাকে আদালতে হাজির করা হয়।
সোমবার বিকালে এমসি কলেজ কেন্দ্রে স্নাতক পরীক্ষা শেষে বের হয়ে হামলার শিকার হন সিলেট সরকারি মহিলা কলেজের স্নাতক দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্রী খাদিজা।- বিডিনিউজ