খেতে বিষ প্রয়োগে মুরগির মৃত্যু বাগমারায় প্রতিপক্ষের হামলায় আহত ৫

আপডেট: ডিসেম্বর ৩, ২০১৬, ১২:০০ পূর্বাহ্ণ

বাগমারা প্রতিনিধি
রাজশাহীর বাগমারা উপজেলার নরদাশ ইউনিয়নের কাষ্টনাংলা গ্রামে খেতে বিষ প্রয়োগে মুরগি মরে যাওয়াকে কেন্দ্র করে প্রতিপক্ষের হামলায় ৫ জন আহত হয়েছে। আহতদের মধ্যে কাষ্টন্যাংলা গ্রামের নায়েব আলী (৩২) ও তার চাচা আফছার আলী (৪৫) নামের দুইজনকে বাগমারা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসার জন্য ভর্তি করা হয়েছে।
ওই ঘটনায় আহত নায়েব আলীর বড় ভাই সাহেব আলী বাদী হয়ে চারজনকে আসামি করে গতকাল শুক্রবার বাগমারা থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দাখিল করেছেন।
থানার লিখিত অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে, কাষ্টনাংলা গ্রামের আকবর আলী এলাকার লোকজনকে না জানিয়ে তার জমিতে বিষ (কীটনাশক) মেশানো সরিষা ও গম রোপণ করেন। সরিষা ও গমের জমিতে প্রতিবেশীদের মুরগি, কবুতর গিয়ে বিষ (কীটনাশক) মাখানো সরিষা ও গম খেয়ে অনেকের মুরগি মারা যায়। ওই জমিতে প্রতিবেশী সাহেব আলীর ২৫টি মুরগি গেলে বিষ (কীটনাশক) মাখানো সরিষা ও গম খেয়ে মারা যায়। বিষয়টি নিয়ে সাহেব আলীর ছোট ভাই নায়েব আলী মৌখিকভাবে প্রতিবাদ করলে আকবর আলী তার লোকজন নিয়ে নায়েব আলীর ওপর হামলা চালায়। নায়েব আলীর চিৎকার শুনে তার চাচা আফছার আলী এগিয়ে আসলে তাকেও ধাঁরালো ছোরা দিয়ে কুপিয়ে রক্তাক্ত জখম করে। ওই সময় এলাকার লোকজন ঘটনাস্থলে এগিয়ে আসলে তাদের হামলায় ৫ জন আহত হয়। স্থানীয় লোকজন আহতদের উদ্ধার করে বাগমারা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে জন্য ভর্তি করে।
থানায় লিখিত অভিযোগকারী সাহেব আলী বলেন, পরিকল্পিতভাবে আকবর আলী তার জমিতে বিষ মাখানো বীজ রোপণ করে আমার ২৫টি মুরগি মেরে ফেলেছে। বর্তমান বাজারে যার আনুমানিক মূল্য ৭ হাজার টাকা হবে বলে তিনি জানিয়েছেন। তিনি মুরগির ক্ষতিপূরণসহ অপরাধীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণের দাবি জানিয়েছেন।
এ ব্যাপারে যোগাযোগ করা হলে বাগমারা থানার ওসি (তদন্ত) আসাদুজ্জামান আসাদ অভিযোগ পাওয়ার বিষয়টি স্বীকার করে বলেন, তদন্ত করে অপরাধীদের বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ