খোলা বাজারের চাল কালো বাজারে বিক্রি, দোকান সিলগালা

আপডেট: সেপ্টেম্বর ১১, ২০২২, ১১:০৬ অপরাহ্ণ

বাগমারা প্রতিনিধি:


রাজশাহীর বাগমারায় দিনে দুপুরে ওএমএস’র চাল পাচার করার সময় স্থানীয় জনতা টের পেয়ে ভ্যানসহ চৌদ্দশো কেজি চাল আটক করেছে। পরে খবর পেয়ে উপজেলা নির্বাহী অফিসার ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে আটককৃত ভ্যান ও চাল জব্দ করে ওএমএস ডিলারের দোকানঘরটি সিলগালা করে দেন। ঘটনাটি ঘটেছে শনিবার দুপুরে ভবানীগঞ্জ পৌরসভার পাহাড়পুর ঋষিপাড়া মহল্লায়।

এলাকাবাসী ও ইউএনও’র দপ্তর সূত্রে জানা গেছে, ওই মহল্লার ওএমএস ডিলার আসমা খাতুন স্বল্পমূল্যে সরকারের খাদ্য সহায়তা ওএমএস’র চাল উত্তোলন করে তা টিসিবির কার্ডধারী ও স্বল্প আয়ের লোকজনের মাঝে ৩০ টাকা কেজি ধরে বিক্রি করে আসছিল। আসমা খাতুনের নামে ডিলারশিপ থাকলেও কাজটি দেখাশুনা করত তার মেয়ের জামাই গোপালপুর গ্রামের হেলাল উদ্দিন।

সম্প্রতি হেলাল উদ্দিন আসমা খাতুনের নামে ভবানীগঞ্জ খাদ্য গুদাম থেকে ওএমএস’র চাল উত্তোলন করে সেগুলো বিলি করার জন্য পাহাড়পুর মোড়ের একটি দোকানে মজুত করে। শনিবার দুপুরে হেলাল উদ্দিন তার কিছু সাঙ্গপাঙ্গ নিয়ে সরকারি সিলমারা বস্তার চালগুলো মুরগির ফিডের কিছু বস্তায় ভরে সেগুলো একটি ভ্যানযোগে তুলে পাচার করার চেষ্টা করে। বিষয়টি স্থানীয় জনতা ও মোড়ের অন্য ব্যবসায়ীরা টের পেয়ে স্থানীয় ওয়ার্ড কাউন্সিলর আহাদ আলীকে খবর দেয়। খবর পেয়ে তিনি ঘটনাস্থলে এসে চাল পাচার করার বিষয়টি দেখতে পেয়ে ভ্যান চালকসহ চাল ও ডিলার আসমা খাতুনের জামাইকে আটক করে উপজেলা নির্বাহী অফিসার সাইদা খানম কে খবর দেয়। পরে ইউএনও থানার কিছু ফোর্স ও সহকারি খাদ্য কর্মকর্তাকে নিয়ে ঘটনাস্থলে উপস্থিত হন।

এ দিকে ইউএনও আসার খবর পেয়ে হেলাল উদ্দিন ও ভ্যান চালক ভ্যানগাড়িটি মোড়ের উপর ফেলে রেখে কৌশলে পালিয়ে যায়। পরে ইউএনও চাল পরিমাপ করে সেখানে চৌদ্দশো কেজি চাল রয়েছে বলে জানতে পারেন। এ সময় ইউএনও চালের বস্তা গুলো জব্দ করে ও ডিলারের দোকান ঘরটি সিলগালা করে দেয়।

এদিকে খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, তাহেরপুর এবং ভবানীগঞ্জ বাজারে ৭ জন ডিলারের মাধ্যমে ওএমএসর চাল বিক্রয় করা হচ্ছে। এর মধ্যে তাহেরপুরে ৪ জন এবং ভবানীগঞ্জ ৩ জন ডিলার চাল বিক্রয় করে আসছেন। সরকারি বিধি লংঘন করে ইচ্ছেমতো ওএমএসের চাল বিক্রয় করছেন বলে অভিযোগ উঠেছে। বিশেষ করে তাহেরপুর পৌরসভা উপজেলা সদর থেকে দূরে হওয়ার কারণে সঠিক মনিটরিং এর অভাবে ডিলাররা পুকুর চুরি করছেন। জরুরিভাবে তাহেরপুর পৌরসভার প্রতিটি ডিলারের নিকট তদারকি কর্মকর্তাদের উপস্থিতিতে চাল বিক্রয়ের নির্দেশ থাকলেও তা মানছেন না তারা।

এ বিষয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সাইদা খানম জানান, প্রাথমিকভাবে ঘটনার সত্যতা পেয়ে চালগুলো জব্দ করে দোকানটি সিলগালা করা হয়েছে। সেই সাথে কোনো ডিলারের বিরুদ্ধে অনিয়মের অভিযোগ পেলে তাদেরও ডিলারশিপ বাতিল করা হবে।