গাজায় সুড়ঙ্গগুলিতে পানি ঢুকিয়ে হামাসবাহিনিকে শেষ করার চেষ্টা ইসরায়েলের?

আপডেট: ডিসেম্বর ৫, ২০২৩, ১:১৯ অপরাহ্ণ

সোনার দেশ ডেস্ক :


গাজায় সুড়ঙ্গগুলিতে পানি ঢুকিয়ে এ বার হামাসবাহিনিকে শেষ করার প্রস্তুতি নিয়েছে ইসরায়েল। ইতোমধ্যেই সেখানে বড় বড় পাম্প নিয়ে এসেছে ইসরায়েলবাহিনি। আমেরিকার এক সরকারি আধিকারিককে উদ্ধৃত করে এমনটাই দাবি করেছে ওয়াল স্ট্রিট জার্নাল।

ইসরায়েল প্রথম থেকেই দাবি করে আসছে, গাজার নীচে সুড়ঙ্গগুলি থেকেই লড়াই চালাচ্ছে হামাস। স্থলপথে গাজায় ঢোকার পর ইসরায়েল বাহিনির প্রথম লক্ষ্য ছিল সুড়ঙ্গগুলিকে ধ্বংস করা। পুরো গাজায় যে ভাবে হামাসের সুড়ঙ্গের জাল বিস্তৃত তাতে বেশ চ্যালেঞ্জের মুখেই পড়তে হচ্ছে ইসরায়েল বাহিনিকে। হাসপাতাল, স্কুল, বড় বড় আবাসনের নীচে সুড়ঙ্গ বানিয়ে সেগুলি আত্মগোপন, কমান্ড সেন্টার হিসাবে ব্যবহার করছে বলে দাবি ইসরায়েলের।

আকাশপথ, স্থলপথে হামলা চালিয়েও যখন সুড়ঙ্গের এই জাল ছেঁড়া বড় বাধা হয়ে দাঁড়াচ্ছে, এ বার তাই অন্য পন্থা নিল ইসরাইল।
ওয়াল স্ট্রিট জার্নালের প্রতিবেদন অনুযায়ী, প্রথমে সুড়ঙ্গগুলি চিহ্নিত করা হবে। এরপর সেগুলির ভিতরে পাম্প দিয়ে পানি ঢুকিয়ে দেয়া হবে। প্লাবিত করা হবে ওই সুড়ঙ্গগুলিকে। ওই প্রতিবেদন অনুযায়ী, আল-শাতি শরণার্থী শিবিরের কয়েক কিলোমিটার উত্তরে বড় বড় পাঁচটি পাম্প বসিয়েছে ইসরায়েল বাহিনি।

যে পাম্পগুলির মাধ্যমে ঘণ্টায় কয়েক হাজার কিউবিক মিটার পানি বের হয়। কয়েক সপ্তাহের মধ্যেই হামাসের সুড়ঙ্গগুলিতে পডানি ঢোকানো হতে পারে বলে ওই প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়েছে। তবে পাশাপাশি আরো একটি বিষয় উঠে আসছে। সেটি হল, পণবন্দিরা সব মুক্তি না পাওয়া পর্যন্ত কি এই কৌশল নেবে ইসরায়েল? যদিও এই বিষয়ে স্পষ্ট কোনো কিছু উল্লেখ নেই ওই প্রতিবেদনে। ইসরায়েলও এই বিষয়ে কোনো মন্তব্য করেনি।

তবে ওয়াল স্ট্রিট জার্নাল দাবি করেছে, ইসরায়েল বাহিনির এক আধিকারিক সুড়ঙ্গে পানি ঢোকানোর বিষয়টি অস্বীকার করেছে ঠিকই, তবে হামাসের সুড়ঙ্গগুলিকে যে একেবারে ধ্বংস করে দেয়ার নানা রকম কৌশল নেয়া হচ্ছে, সে বিষয়ে জানিয়েছেন। তবে ইসরায়েল বাহিনির একটি অংশ আবার এই রণকৌশলের বিষয়টিকে পুরোপুরি উড়িয়েও দিতে চাননি বলেও ওই প্রতিবেদনে দাবি করা হয়েছে।
তথ্যসূত্র: আনন্দবাজার অনলাইন

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ