গাজা থেকে উদ্ধার তিন ইসরায়েলি পণবন্দির লাশ

আপডেট: মে ২৫, ২০২৪, ১:৩৯ অপরাহ্ণ

সোনার দেশ ডেস্ক :


৮ মাস পেরিয়ে গেলেও গাজায় হামাসের ডেরায় বন্দি আছে শতাধিক মানুষ। যত দিন যাচ্ছে দীর্ঘ হচ্ছে অপেক্ষা। কবে বন্দিরা ঘরে ফিরবেন? এর উত্তর জানতে ইসরায়েলি সরকারের বিরুদ্ধে বিক্ষোভ দেখাচ্ছে তাঁদের পরিবার। এর মাঝেই আবারো একবার গাজা থেকে তিন পণবন্দির মরদেহ উদ্ধার করেছে ইসরায়েলি ডিফেন্স ফোর্সেস (আইডিএফ)।

গত ৭ অক্টোবর ইসরায়েলের বুকে বেনজির হামলা চালায় ফিলিস্তিনের জঙ্গি গোষ্ঠী হামাস। অপহরণ করে নিয়ে যায় দুশোর উপর মানুষকে। বিভিন্ন আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যম সূত্রে খবর, সেই তালিকায় ছিলেন হানান ইয়াবলঙ্কা, মিশেল নিসেনবাউম এবং ওরিয়ন হার্নান্দেজ নামে তিন ইসরায়েলি। বৃহস্পতিবার গাজার জাবালিয়া শহরে রাতভর অভিযান চালায় আইডিএফ। সেখান থেকেই এই তিন জনের মরদেহ উদ্ধার করেন ইসরায়েলি জওয়ানরা।

এই বিষয়ে ইসরায়েলের প্রতিরক্ষা বাহিনি শুক্রবার (২৪ মে) এক্স হ্যান্ডেলে জানিয়েছে, ‘হানান ইয়াবলঙ্কা, মিশেল নিসেনবাউম ও ওরিয়ন হার্নান্দেজকে গত ৭ অক্টোবর খুন করে হামাস জঙ্গিরা। তার পর তাঁদের গাজায় নিয়ে যাওয়া হয়। রাতভর অভিযান চালিয়ে ওই তিন জনের মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে জাবালিয়া থেকে। দেহগুলো ইসরায়েলে ফিরিয়ে আনা হয়েছে। পণবন্দিদের ঘরে ফেরাতে আমাদের অভিযান জারি থাকবে। মৃতদের স্মৃতি আমাদের কাছে আশীর্বাদ হয়ে থাকবে।’

গাজা থেকে ইসরায়েলিদের মরদেহ উদ্ধারের খবর পেয়েই আরো উদ্বেগ বেড়েছে পণবন্দিদের পরিবারের। তারা সকলেই আবারো একবার ইসরায়েলের সরকারের কাছে অনুরোধ জানিয়েছেন, দ্রুত যেন বন্দিদের ফেরানোর বিষয়ে পদক্ষেপ করা হয়। তাদের মুক্তি নিয়ে ইসরায়লের অন্দরেই ক্ষোভ বাড়ছে প্রধানমন্ত্রী বেঞ্জামিন নেতানিয়াহুর বিরুদ্ধে। এই মুহূর্তে প্রায় ১২১ জন বন্দি রয়েছেন হামাসের ডেরায়। টাইমস অফ ইসরায়েল সূত্রে খবর, এর মধ্যে ৩৭ জনের মৃত্যুর খবর নিশ্চিত করেছে আইডিএফ।

বলে রাখা ভালো, হামাস নিধনে গোটা গাজা ভূখণ্ড গুঁড়িয়ে দিচ্ছে ইসরায়েলি ফৌজ। খুঁজে খুঁজে নিশানা করা হচ্ছে হামাসের ডেরাগুলোকে। পণবন্দিদের লুকিয়ে রাখা থাকতে পারে এমন জায়গায় চিরুনি তল্লাশি চলছে। গত সপ্তাহে গাজার একটি অঞ্চল থেকে তিন জনের মরদেহ উদ্ধার করেছিল আইডিএফ। যাঁদের নাম শানি লুক, ইতজাক গেলেরেন্টার ও অ্যামিট বুস্কিলা। গত ৭ অক্টোবর ওই তিন জন সুপারনোভা মিউজিক ফেস্টিভ্যালে ছিলেন। সেখান থেকেই হামাস জঙ্গিরা তাঁদের অপহরণ করে নিয়ে যায়।
তথ্যসূত্র: সংবাদ প্রতিদিন অনলাইন

 

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

Exit mobile version