গার্ডার চাপায় নিহত ৫ ভারাক্রান্ত মনে স্বজনের লাশ গ্রহণ

আপডেট: আগস্ট ১৬, ২০২২, ৮:৪৭ অপরাহ্ণ

সোনার দেশ ডেস্ক:


যেকোনও মৃত্যু স্বজনদের কাছে ভারী। সেই মৃত্যু যদি হয় আকস্মিক দুর্ঘটনায় তাহলে সেই লাশ আরও ভারী হয়ে বহন অনুপোযোগী হয়। তেমনটিই ঘটেছে উত্তরায় গার্ডার চাপায় নিহতের স্বজনদের। মঙ্গলবার (১৬ আগস্ট) সোহরাওয়ার্দী হাসপাতালে লাশ গ্রহণের সময় সৃষ্টি হয় হৃদয়বিদারক পরিস্থিতির।

সোমবার (১৫ আগস্ট) বিকালে রাজধানীর উত্তরায় বিআরটি প্রকল্পের ফ্লাইওভারের একটি গার্ডারের চাপায় প্রাইভেটকারে থাকা শিশুসহ নিহত ৫ জনের মরদেহ ময়নাতদন্ত শেষে আজ পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। এসময় চারপাশে কান্নার রোল ওঠে।
মঙ্গলবার (১৬ আগস্ট) বিকাল পৌনে ৫টায় তিনটি ফ্রিজিং অ্যাম্বুলেন্সে করে শহীদ সোহরাওয়ার্দী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের মর্গ থেকে ময়নাতদন্ত শেষে মরদেহগুলো পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়।

নিহত রুবেলের ছেলে হৃদয় সাংবাদিকদের জানান, তার বাবার মরদেহ প্রথমে মানিকগঞ্জে নেওয়া হবে। সেখানে জানাজা শেষে মেহেরপুরে নিজ গ্রামে দাদা-দাদির কবরের পাশে তাকে দাফন করা হবে। হাসপাতাল থেকে তিনি তার বাবার মরদেহ বুঝে নিয়েছেন।
নিহত ঝর্ণা আক্তারের ভাই মনির হোসেন তার দুই বোন ও ভাগ্নি-ভাগ্নের মরদেহ বুঝে নেন। এই পরিবারের পক্ষ থেকে জানানো হয়, মরদেহ চারটিকে তাদের গ্রামের বাড়ি জামালপুরে জানাজার শেষে দাফন করা হবে।

উল্লেখ্য, সোমবার বিকালে রাজধানীর উত্তরায় বিআরটি প্রকল্পের ফ্লাইওভারের গার্ডার চাপায় প্রাইভেটকারে থাকা শিশুসহ পাঁচ জন নিহত হন। আহত হন আরও দুই জন।
তথ্যসূত্র: বাংলাট্রিবিউন