গাড়িটি দুর্ঘটনা ঘটিয়ে নারীকে ছেঁচড়ে নিয়ে গেল এক কিলোমিটার

আপডেট: ডিসেম্বর ২, ২০২২, ৮:৫৯ অপরাহ্ণ

সোনার দেশ ডেস্ক:


প্রাইভেট কারটি যখন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ভেতর দিয়ে পালানোর চেষ্টায়, স্তম্ভিত পথচারীরা দেখলেন- ওই গাড়ির নিচেই আটকে রয়েছে শাড়ি পরা এক নারী।

মরিয়া চালক ওইভাবেই গাড়িটি চালিয়ে নিলেন প্রায় এক কিলোমিটার। উত্তেজিত জনতা তখন গাড়ির নিচ থেকে বের করে ক্ষতবিক্ষত ওই নারীর লাশ। পিটুনিতে আহত চালককেও হাসপাতালে পাঠাতে হয়।

শাহবাগ থানার ওসি নূর মোহাম্মদ বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, শুক্রবার বিকাল ৩টার দিকে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় মসজিদ এলাকায় দুর্ঘটনা ঘটায় গাড়িটি।

প্রাইভেট কারটি চালাচ্ছিলেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক শিক্ষক আজাহার জাফর শাহ। তখন গাড়িতে তিনি ছাড়া আর কেউ ছিল না।
যিনি মারা গেছেন সেই রুবিনা আক্তার (৪০) ছিলেন একটি মোটর সাইকেলে। জাফরের গাড়ির ধাক্কায় তিনি ছিটকে চলে যান ওই গাড়ির নিচে। পেছন ও আশপাশের থেকে অনেকে চিৎকার করলেও চালক গাড়ি থামাননি। এক কিলোমিটার ছেঁচড়ে যাওয়ার পর রুবিনাকে আর বাঁচানোর উপায় ছিল না। ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিলে চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

পুলিশ জানায়, দেবর নুরুল আমিনের সঙ্গে মোটরসাইকেল করে হাজারীবাগে ভাইয়ের বাসায় যাচ্ছিলেন রুবিনা। তার নিজের বাসা তেজগাঁওয়ের তেজকুনিপাড়ায়। স্বামী মাহবুবর রহমান খান ডলার মারা গেছেন আগেই। অষ্টম শ্রেণি পড়ুয়া এক ছেলে রয়েছে তাদের।
সোশাল মিডিয়ায় আসা একটি ভিডিওতে দেখা যায়, এক নারী একটি প্রাইভেট কারের বাঁপাশে আটকে রয়েছেন। পেছনের বাইকাররা চিৎকার করে গাড়ি থামাতে বলছেন, কিন্তু গাড়ি চালক দ্রুত গতিতে চালিয়েই যাচ্ছেন।

নীলক্ষেত মোড়ে মুক্তি ও গণতন্ত্র তোরণ পার হতেই সামনে একটি অটোরিকশা এসে পড়ায় গতি কমাতে বাধ্য হন গাড়ি চালক। জনতা তখন গাড়িটি ঘিরে ফেলে।

ওসি নূর মোহাম্মদ বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, “জনতা গাড়িটি আটক করে চালককে ধোলাই দেয়। চালক জাফরের অবস্থাও ভালো না। তাকে ঢাকা মেডিকেলে ভর্তি করা হয়েছে।”
তথ্যসূত্র: বিডিনিউজ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ