গিনির সেনানিবাসে ব্যাপক বিস্ফোরণ, নিহত অন্তত ২০

আপডেট: মার্চ ৮, ২০২১, ২:৫৫ অপরাহ্ণ

সোনার দেশ ডেস্ক


মধ্য আফ্রিকার দেশ ইকোয়াটোরিয়াল গিনির একটি সেনানিবাসে ব্যাপক বিস্ফোরণে অন্তত ২০ জন নিহত এবং আরও ছয়শ’রও বেশি আহত হয়েছে। দেশটির রাষ্ট্রীয় টেলিভিশনে সম্প্রচারিত প্রেসিডেন্ট তিওডোরো ওবিয়াং নুগুয়েমা মোবাসোগো এক বিবৃতিতে জানিয়েছেন, ডিনামাইট নড়চড়ায় অবহেলার কারণে এই বিস্ফোরণ ঘটেছে। স্থানীয় সময় রবিবার চারটার দিকে দেশটির বাতা শহরের কাছে এই বিস্ফোরণ ঘটে। বিস্ফোরণের কারণে শহরটির প্রায় সব ভবনই ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে। ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম গার্ডিয়ানের প্রতিবেদন থেকে এসব তথ্য জানা গেছে।
রবিবার রাতে ইকোয়াটোরিয়াল গিনির প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের এক বিবৃতিতে জানানো হয়, অস্ত্র গুদামে আগুন লাগার পর হাই ক্যালিবার গোলাবারুদ বিস্ফোরিত হয়। প্রাথমিকভাবে ২০ জন নিহত এবং ছয় শতাধিক মানুষ আহত হয়েছে। বিস্ফোরণের কারণ তদন্ত করে দেখা হচ্ছে বলেও জানানো হয়।
রাষ্ট্রীয় টেলিভিশনে প্রচারিত ফুটেজে দেখা গেছে, বিস্ফোরণ স্থলের গোটা এলাকায় ধোঁয়া আচ্ছন্ন হয়ে পড়েছে। সেখানে অন্তত পাঁচটি বিস্ফোরণ পর মানুষ পালাতে শুরু করে। বিস্ফোরণের সময় ধারণ করা অনেক ভিডিও ও ছবি সামাজিক মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়েছে। তাতে দেখা যাচ্ছে- ধ্বংসস্তুপে চাপা পড়া মানুষ বাঁচার জন্য আকুতি জানাচ্ছেন।
গিনির সবচেয়ে বড় শহর বাতা। দেশটির প্রায় ১৪ লাখ জনসংখ্যার আট লাখই এই শহরে বসবাস করে। তারপরও এটি দেশটির রাজধানী শহর নয়। পশ্চিম আফ্রিকার উপকূলীয় শহর মালাবো দেশটির রাজধানী।
৭৮ বছর বয়সী প্রেসিডেন্ট তিওডোরো ওবিয়াং নুগুয়েমা মোবাসোগো প্রায় ৪২ বছর ধরে গিনি শাসন করছেন। বিরোধী দলগুলো এবং আন্তর্জাতিক মানবাধিকার সংস্থাগুলো প্রায়ই তার বিরুদ্ধে মানবাধিকার লঙ্ঘনের অভিযোগ এনে থাকে।
তথ্যসূত্র: বাংলাট্রিবিউন