গুরুদাসপুরে আড়াই বছরের শিশু হত্যার কারণ উদঘাটন হয় নি

আপডেট: মে ৮, ২০১৭, ১২:২৪ পূর্বাহ্ণ

গুরুদাসপুর প্রতিনিধি


নাটোরের গুরুদাসপুরে আড়াই বছরের শিশুকন্যা দৃষ্টির বাক্সবন্দী লাশ উদ্ধারের ঘটনার ২৪ ঘণ্টা পেরিয়ে গেলেও শিশুটিকে হত্যার কারণ উদঘাটন করতে পারে নি পুলিশ।
এদিকে গত শনিবার রাতে শিশু দৃষ্টি হত্যার ঘটনায় প্রতিবেশী প্রদীপ ঘোষ (৪০) তার স্ত্রী রীতা রানী ঘোষ (৩০) ও প্রদীপের ছেলে হৃদয়কে (১৫) আসামি করে গুরুদাসপুর থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন নিহত শিশু দৃষ্টির বাবা মোহন ঘোষ। গতকাল রোববার আদালতের মাধ্যমে তাদের নাটোর জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে।
গতকাল রোববার বিকালে ওসি তদন্ত তারেকুর রহমান সরকার জানান, ভিসেরা রিপোর্ট পুলিশের হাতে না পাওয়ায় শিশুটির মৃত্যুর কারণ জানা যায় নি। তবে ওসি দিলীপ কুমার দাস জানিয়েছেন শ্বাসরোধ করেই শিশু দৃষ্টিকে হত্যা করা হয়েছে। পারিবারিক কলহের জের ধরে শিশুটিকে হত্যা করা হয়েছে বলে জানায় এলাকাবাসী।
এ ব্যাপারে গুরুদাসপুর থানার ওসি দিলীপ কুমার দাস বলেন, শিশু দৃষ্টিকে শ্বাসরোধ করেই হত্যা করা হয়েছে বলে ধারণা করা হচ্ছে।
এর আগে গত শুক্রবার সকাল ১০টার দিকে চাঁচকৈড় বাজারপাড়ার মোহনঘোষের মেয়ে দৃষ্টি নিখোঁজ হওয়ার পর মাইকিংসহ বিভিন্নভাবে খোঁজাখুজির ৩০ ঘণ্টা পর শনিবার বিকালে প্রতিবেশি প্রদীপ ঘোষের শয়নঘরের খাটের নিচে রাখা ট্রাঙ্কের মধ্যে দৃষ্টির বস্তাবন্দী লাশ উদ্ধার করে পুলিশ।