গুরুদাসপুরে উত্ত্যক্তের বিচার চাওয়ায় মা-বাবাসহ তিনজনকে পিটিয়ে জখম, গ্রেফতার ৩

আপডেট: জুলাই ৩, ২০১৭, ১২:৫৭ পূর্বাহ্ণ

গুরুদাসপুর প্রতিনিধি


নাটোরের গুরুদাসপুরে নবম শ্রেণির এক মাদরাসা ছাত্রী (১৩) উত্ত্যক্তের শিকার হয়েছে। ও্ই ঘটনার বিচার চাইতে গেলে ওই ছাত্রীর মা-বাবা ও চাচাকে পিটিয়ে আহত করেছে উত্ত্যক্তকারিরা। গত শনিবার সন্ধ্যা সাড়ে সাতটার দিকে গুরুদাসপুর পৌরসভার চাঁচকৈড় গাড়িষাপাড়া মহল্লায় এ ঘটনা ঘটেছে।
ওই ঘটনায় ছাত্রীর বাবা বাদী হয়ে উত্ত্যক্তকারি জুয়েল (১৭) তার বন্ধু আতিকুল ্ইসলাম (১৬) জুয়েলের বাবা জামাল মল্লিককে আসামি করে শনিবার রাতেই থানায় মামলা দায়ের করেন। পুলিশ রাতেই আসামিদের গ্রেফতার করে। গতকাল রোববার তাদের আদালতের মাধ্যমে নাটোর জেল হাজতে পাঠায়। গুরুদাসপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) দিলীপ কুমার দাস এ ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।
পুলিশ ও ভুক্তভোগী পরিবার সুত্রে জানা গেছে, গত শনিবার সন্ধ্যার পর বিদ্যুৎ চলে যাওয়ায় গরমে ওই ছাত্রী তার মায়ের সাথে বাড়ি সংলগ্ন সড়কে হাঁটতে বের হয়। এসময় জুয়েল ও তার বন্ধু আতিকুল মায়ের সামনেই ওই ছাত্রীকে নানাভাবে উত্ত্যক্ত করে। বিষয়টি উত্ত্যক্তকারি জুয়েলের পরিবারকে জানান ছাত্রীর মা।
ওই ঘটনায় ক্ষিপ্ত হয়ে জুয়েল তার লোকজন সিয়ে ওই ছাত্রীর মা-বাবা ও চাচাকে মারপিট করে। এতে তারা আহত হয়। ছাত্রীর মা (৩৫) কে গুরতর আহত অবস্থায় গুরুদাসপুর উপজেলা স্বাস্থ্যকমপ্লেক্সে শনিবার রাতেই ভর্তি করা হয়। বাবা ও চাচাকে প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে।
এব্যাপারে উত্ত্যকারিদের পরিবারের পক্ষে শফি মল্লিক দাবি করেন, কোন উত্ত্যক্তের ঘটনা ঘটেনি।। পারিববারিক বিরোধের জের ধরে মারধরের ঘটনা ঘটেছে।
গুরুদাসপুর থানার ওসি দিলীপ কুমার দাস বলেন, ছাত্রীর বাবার দায়ের করা মামলার সত্যতা পেয়্ইে আসামিদের গ্রেফতার করে জেল হাজতে পাঠানো হয়েছে।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ