গুরুদাসপুরে গ্রাহকদের চাঁদা ফিরিয়ে দিয়ে বিদ্যুৎ সংযোগ দিলেন সাংসদ

আপডেট: জুলাই ১২, ২০১৭, ১:২৮ পূর্বাহ্ণ

গুরুদাসপুর প্রতিনিধি


নাটোরের গুরুদাসপুরে চাঁদার টাকা আদায়ের পর গ্রাহকদের বিদ্যুৎ সংযোগ দিলেন নাটোর-৪ (গুরুদাসপুর-বড়াইগ্রাম) আসনের সাংসদ আবদুল কুদ্দুস। গত সোমবার সন্ধ্যায় উপজেলার নারায়নপুর গ্রামে ৮৯ গ্রাহকের সংযোগের উদ্বোধন করেন তিনি।
স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, নারায়নপুর গ্রামে প্রায় ছয় মাস আগে ৮৯ জন গ্রাহকের বাড়িতে বিদ্যুৎ সংযোগের সকল প্রক্রিয়া শেষ করেন বিদ্যুৎ বিভাগের নিযুক্ত ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান। কিন্তু ওই গ্রামের কালু শাহ ও আফজাল হোসেন নামে দুই ব্যক্তি দ্রুত বিদ্যুৎ সংযোগের কথা বলে প্রায় ৭৫ হাজার টাকা হাতিয়ে নেন।
এমন অভিযোগ থাকার কারণে সাংসদ আবদুল কুদ্দুস গ্রামটিতে বিদ্যুৎ সংযোগ বন্ধ রাখেন। পরে স্থানীয়দের মাধ্যমে গ্রাহকদের কাছ থেকে নেয়া চাঁদার ৭৫ হাজার টাকা দুই দফায় আদায় করেন সাংসদ। সোমবার সন্ধ্যায় আদায়কৃত চাঁদার টাকা ফেরত দিয়ে বিদ্যুৎ সংযোগের উদ্বোধন করেন সাংসদ।
এ উপলক্ষে নারায়নপুর গ্রামের আবুল হোসেন নামে এক ব্যক্তির আঙিনায় এক অনুষ্ঠানের আয়োজন করেন গ্রামববাসী। বিয়াঘাট ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মোজাম্মেল হোসেনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বক্তব্য দেন গুরুদাসপুর পৌর আ’লীগের সভাপতি জাহিদুল ইসলাম ও সাধারণ সম্পাদক আরিফুল ইসলাম, উপজেলা যুব মহিলা লীগের সভানেত্রী নাসরিন সুলতানা, পৌর আ’লীগের যুগ্মসম্পাদক রেজাউল করিম ও নাটোর পল্লীবিদ্যুৎ সমিতি-২’র এজিএম সৈয়দ সাজ্জাদুল আজম প্রমুখ।
সাংসদ আবদুল কুদ্দুস তাঁর বক্তব্যে বলেন, তার নির্বাচনী এলাকাতে বিদ্যুৎ সংযোগের নামে কতিপয় চিহ্নিত ব্যক্তি সাধারণ মানুষকে ধোকা দিয়ে গ্রাহকদের কাছ থেকে চাঁদা আদায় করছেন। ইতোমধ্যে তিনি বিভিন্ন এলাকা থেকে চাঁদার ৪৫ লাখ টাকা আদায় করে গ্রাহকদের কাছে ফেরত দিয়েছেন। এজন্য তিনি প্রধানমন্ত্রীসহ সারাদেশের বিদ্যুৎ বিভাগে প্রশংসিত হয়েছেন। তিনি আরো বলেন, বিদ্যুৎ সংযোগের নামে কেউ চাঁদাবাজি করলে তাদের বিবরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য পল্লী বিদ্যুৎ সমিতিকে নির্দেশ দেন।