গুরুদাসপুরে ভূমিহীনের দোকানে প্রতিপক্ষের আগুন

আপডেট: আগস্ট ২৬, ২০১৭, ১:২৯ পূর্বাহ্ণ

গুরুদাসপুর প্রতিনিধি


নাটোরের গুরুদাসপুর উপজেলার চাপিলা ইউনিয়নের নওপাড়া বাজারে অবস্থিত ভূমিহীন আবদুল আজিজের হোটেল রেস্তোরা উচ্ছেদে ব্যর্থ হয়ে অবশেষে অগ্নি সংযোগে পুড়িয়ে দিয়েছে দুর্বৃত্তরা। চাঁদা দিতে অস্বীকার করায় গত বৃহস্পতিবার গভীর রাতে আবদুল আজিজের দোকান রেস্তোরায় আগুন লাগিয়ে পুড়িয়ে দেয়া হয়েছে বলে ধারণা স্থানীয়দের।
সরেজমিনে গিয়ে জানা গেছে, উপজেলার চাপিলার ইউনিয়নের খামারপাথুরিয়া গ্রামের নাজিম উদ্দিনের ছেলে আবদুল আজিজ প্রায় এক বছর ধরে স্থানীয় মহোর আলীর জায়গা ভাড়া নিয়ে টিনের ঘর তুলে হোটেল-রেস্তোরার ব্যবসা চালিয়ে আসছিল। কিন্তু তার প্রতিপক্ষ হাকিম উদ্দিনের ছেলে নওপাড়া উচ্চবিদ্যালয়ের নৈশ্যপ্রহরী শহিদুল ইসলাম, শুকুর আলী ও জাহাঙ্গিরের নেতৃত্বে একই এলাকার মোজামের ছেলে জালাল, সকিরের ছেলে রাজিব ও জামালের ছেলে সালামসহ সাঙ্গপাঙ্গরা ভূমিহীন আবদুল আজিজকে দোকানসহ উচ্ছেদের ষড়যন্ত্র করে ৫০ হাজার টাকা চাঁদা দাবি করে। চাঁদা দিতে অস্বীকার করায় গত বৃহস্পতিবার গভীর রাতে তারা আবদুল আজিজের দোকান রেস্তোরায় আগুন লাগিয়ে পুড়িয়ে দেয়। ফলে ভূমিহীন আবদুল আজিজের দেড় লাখ টাকার ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে বলে তার মা আজিরন বিবি জানান।
স্থানীয় দোকানদার আবদুল মালেক ও লোকাই জানান, প্রতিপক্ষরা অত্যন্ত প্রভাবশালী ও অত্যাচারী হওয়ায় তারা বিভিন্ন মানুষের জমির জবরদখল করে খায়। গৃহবধূ জয়গন ও পিয়ারা বেগম জানান, আবদুল আজিজ এনজিও থেকে ঋণ নিয়ে ওই দোকান চালাচ্ছিল। তার শেষ সম্বলটুকুও প্রতিপক্ষরা পুড়িয়ে দিয়েছে। স্থানীয় কামরুল জানান, ভূমিহীন আবদুল আজিজের বাড়িটি খাস জমিতে। সহায়সম্বল বলতে তার কিছুই নেই। তার দোকান পুড়িয়ে দেয়া অত্যন্ত অমানবিক। দোষিদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি হওয়া উচিত।
এ ব্যাপারে গুরুদাসপুর থানায় ভূমিহীন আবদুল আজিজ প্রতিপক্ষদের বিরুদ্ধে একটি অভিযোগ দায়ের করেছেন। অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে আনিত অভিযোগের ব্যাপারে মন্তব্য নেয়ার জন্য মুঠোফোনে যোগাযোগ করার চেষ্টা করেও তারা ফোন রিসিভ করেন নি।
জানতে চাইলে গুরুদাসপুর থানার ইন্সপেক্টর (তদন্ত) তারেকুর রহমান জানান, অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে দোষিদের বিরুদ্ধে তদন্তপূর্বক ব্যবস্থা নেয়া হবে।