গুরুদাসপুর আ’লীগের কমিটি প্রত্যাখ্যান করে দলের একাংশের সংবাদ সম্মেলন

আপডেট: নভেম্বর ১৭, ২০২২, ১১:০৮ অপরাহ্ণ

নাটোর প্রতিনিধি:


নাটোরের গুরুদাসপুরে উপজেলা আওয়ামী লীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলন ঘিরে তৃণমূল পর্যায়ে যে সম্প্রতি তৈরি হয়েছিল, নব-গঠিত কমিটি ঘোষণার পর বিবাদমান দুইপক্ষের মধ্যে আওয়ামী লীগের কোন্দল আবার প্রকাশ্যে এসেছে। গত মঙ্গলবার গুরুদাসপুর পাইলোট উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে অনুষ্ঠিত এ সম্মেলনের দ্বিতীয় অধিবেশনে আওয়ামী লীগের নতুন কমিটিতে এডভোকেট আনিসুর রহমানকে সভাপতি এবং আব্দুল মতিনকে সাধারণ সম্পাদক হিসেবে ঘোষণা করা হয়। এর কিছুক্ষন পরেই সাবেক উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও গুরুদাসপুর পৌর মেয়র শাহ নেওয়াজ আলী মোল্লা চাচখৈর বাজারস্থ তার নিজ বাসভবনে সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে এই কমিটিকে প্রত্যাখান করেন এবং এ কমিটি স্থানীয় সংসদ সদস্য আব্দুল কুদ্দুসের মনগোড়া পকেট কমিটি হিসাবে আখ্যায়িত করা হয়।

দলীয় সূত্রে জানা যায়, গুরুদাসপুরে উপজেলা আওয়ামী লীগের ত্রী-বার্ষিক সম্মেলনে সভাপতি পদে স্থানীয় সংসদ সদস্য ও জেলা আওয়ামী-লীগের সভাপতি আব্দুল কুদ্দুস সমর্থিত সাবেক সভাপতি আইনজীবী আনিসুর রহমান, ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুল মতিন সভাপতি পদপ্রার্থী হন।

অন্যদিকে সংসদ সদস্য বিরোধী হিসাবে পরিচিত দুই মেয়াদে প্রায় ১৯ বছর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ স¤পাদকের দায়িত্বে পৌর মেয়র শাহনেওয়াজ আলী এবং তার সমর্থিত আব্দুল বারীও সভাপতি পদপ্রার্থী হন। এছাড়া সাংসদ সমর্থিতদের মধ্যে ইউপি চেয়ারম্যান মোজাম্মেল হক, মোস্তাফিজুর রহমান, মনিরুল ইসলাম দোলন, হেলাল, শরিফুল ইসলাম, রেজাউল করিম সবুজ ফকির সাধারণ স¤পাদক পদপ্রার্থী হন। আর মেয়র সমর্থিত প্রভাষক আয়নাল হক এবং আব্দুল মান্নানও সাধারণ সম্পাদক পদপ্রার্থী হন।

গুরুদাসপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের সদ্য বিলুপ্ত কমিটির সাধারণ স¤পাদক মেয়র শাহনেওয়াজ আলী বলেন, দুই মেয়াদে প্রায় ১৯ বছর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ স¤পাদকের দায়িত্ব পালন করেছেন। দলীয় প্রতিক নৌকাসহ টানা তিনবার পৌর মেয়র নির্বাচিত হয়েছেন। এছাড়া দলীয় নির্দেশনা মেনেই সব দ্বিধা ভুলে সাংসদ আব্দুল কুদ্দুসের সাথে একাট্টা হওয়ার কথাও বলেন তিনি। কিন্তু তৃণমূল আওয়ামী লীগের আস্থা ভঙ্গ করা হয়েছে। প্রতারণা করে আব্দুল মতিনকে সাধারণ সম্পাদক ঘোষণা করা হয়েছে। অথচ আব্দুল মতিন আওয়ামী লীগের সদস্যই নন। মূলত সংসদ নির্বাচনে দলীয় মনোনয়ন চাওয়ার কারণেই সাংসদ কুদ্দুসের সাথে তার বিরোধ। আর সেই বিরোধেই তাকে দলীয় পদ থেকে সরানো হয়েছে। তিনি এই পকেট কমিটি প্রত্যাখ্যান করে বলেন, যাকে সেক্রেটারি করা হয়েছে। সেই কোনোদিনই আওয়ামী লীগের পদপদবীতে ছিল না। সে ব্যক্তিকে সেক্রেটারি করা হয়েছে। এতে সামনের দিনে এই কমিটি নিয়ে জামায়াত-বিএনপির বিরুদ্ধে মোকাবিলা করা কঠিন হবে। কারণ তার বাড়ি একটি ইউনিয়নে। যে উপজেলা সদর এলাকায় এসে আন্দোলন-সংগ্রাম করা তার জন্য কঠিন হয়ে পড়বে।

এদিকে নব নির্বাচিত কমিটির সাধারণ স¤পাদক ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুল মতিন জানান, পদ না পেয়ে অনেকেই কুৎসা রটাচ্ছেন। তিনি মূলত দলীয় প্রতীক নৌকা নিয়ে ২বারসহ টানা তিনবার ইউপি চেয়াম্যান নির্বাচিত হয়েছেন। একারণে দল আস্থা রেখে তাকে সাধারণ স¤পাদকের দায়িত্ব দিয়েছে।

অপরদিকে পুণরায় দলীয় সভাপতি নির্বাচিত হওয়ায় দলের নেতা-কর্মী এবং উচ্চ পর্যায়ের নেতাদের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানান আইনজীবি আনিসুর রহামন। তিনি বলেন, দল আস্থা রেখে তাকে পুণরায় সভাপতি নির্বাচিত করেছে। তিনি সেই আস্থার প্রতিদান দিতে চান। এছাড়া আগামী ১ মাসের মধ্যে পূণাঙ্গ কমিটি ঘোষণার পর নতুন কমিটির পক্ষ থেকে কর্মসূচি ঘোষণার কথা জানান তিনি। তবে সাবেক সাধারণ স¤পাদেকর কমিটি প্রত্যাখ্যানের ব্যপারে তিনি কোনো মন্তব্য করেননি।

যদিও ত্রি-বার্ষিক এই সম্মেলনে আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কমিটির যুগ্ম সাধারণ স¤পাদক তথ্য ও প্রযুক্তি মন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ, সাংগঠনিক সম্পাদক এসএম কামাল ও তথ্য-প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী এড. জুনাইদ আহম্মেদ পলকের উপস্থিতিতে প্রস্তাব ও সমর্থক পক্রিয়ার মাধ্যমে সভাপতি-সম্পাদক পদে নাম ঘোষণা করা হয়।

জেলা আওয়ামী-লীগের সাধারন সম্পাদক শরিফুল ইসলাম রজমান বলেন, বর্তমানে যাকে সেক্রেটারীর দায়িত্ব দেয়া হয়েছে সে তিন বারের নৌকা প্রতিক নিয়ে নির্বচিত হয়েছেন এবং তার একটা সমাজে গ্রহণ যোগ্যতা রয়েছে যার কারণেই তাকে এ দায়িত্ব দেয়া হয়েছে।
নাটোর জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি সাংসদ আব্দুল কুদ্দুস জানান, দলীয় নির্দেশ মোতাবেক দলের উচ্চ পর্যায়ের নেতারা কমিটি ঘোষণা করেছেন। এখানে তার কিছু করার নেই।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ