গুলশান হামলায় নিহতদের পরিবারকে সহায়তায় অর্থ ছাড়

আপডেট: জুলাই ৫, ২০১৭, ১২:৩৫ পূর্বাহ্ণ

সোনার দেশ ডেস্ক


আর্থিক সহযোগিতা পাচ্ছেন গুলশানের হলি আর্টিজানে জঙ্গি হামলায় নিহতদের পরিবারের সদস্যরা।
সোমবার অর্থ বিভাগ থেকে নিহতদের পরিবারের জন্য ক্ষতিপূরণের অর্থ ছাড় হয়েছে। তবে আনুষঙ্গিক কাজ শেষে ক্ষতিগ্রস্তদের হাতে ক্ষতিপূরণের অর্থ তুলে দিতে আরো কিছু সময় লাগবে বলে সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে।
ক্ষতিগ্রস্ত প্রতি পরিবারের জন্য ১৫ হাজার ইউরো করে দেয়ার সিদ্ধান্ত হয়েছে। সে হিসেবে নিহত ২০ জনের পরিবারের জন্য মোট ৩ লাখ ইউরো প্রয়োজন হবে। প্রথমে ইতালীয় ৯ নাগরিকের পরিবারকে ক্ষতিপূরণের অর্থ দেয়া হবে। পর্যায়ক্রমে নিহত অন্যদের পরিবারও ক্ষতিপূরণের অর্থ পাবেন বলে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের একটি সূত্র জানিয়েছে।
সূত্র জানায়, এর আগে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমে নিহত ইতালীয়দের পরিবার থেকে সরকারের কাছে ক্ষতিপূরণের দাবি করা হয়েছিল। সরকার যে ক্ষতিপূরণ দিচ্ছে তার চেয়ে অনেক বেশি দাবি ছিল তাদের। তবে তাদের দাবির পরিমাণ উল্লেখ করেনি স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের ওই সূত্র।
অর্থ মন্ত্রণালয় সূত্রে জানা গেছে, গুলশানে জঙ্গি হামলার ঘটনায় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় প্রথমে শুধু নিহত ৯ ইতালীয় নাগরিকের পরিবারকে ১ লাখ ৩৫ হাজার ইউরোর সমপরিমাণ ১ কোটি ২৩ লাখ টাকা দেয়ার সুপারিশ করেছিল। স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় এ বিষয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার অনুমোদনও নিয়েছিল। পরে বিষয়টি অর্থমন্ত্রীর দৃষ্টিগোচর হলে তিনি এ সিদ্ধান্তকে বৈষম্যমূলক উল্লেখ করে এতে আপত্তি জানান।
এ বিষয়ে তিনি বলেন, ‘আমার প্রস্তাব হবে, এই ক্ষতিপূরণ সব ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারকে দেয়া হবে এবং এই ব্যয় সরকারি কোষাগার থেকে হবে। ক্ষতিগ্রস্ত পরিবার যে কোনো দেশেরই (বাংলাদেশিসহ) হোক না কেন তারা সবাই এই সহায়তা পাবেন।’ অর্থমন্ত্রী প্রস্তাবটি অনুমোদনের জন্য প্রধানমন্ত্রীকে অনুরোধ করেন।
বিষয়টি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দৃষ্টিগোচর করলে তিনি অর্থমন্ত্রীর প্রস্তাবের সঙ্গে সহমত পোষণ করেন এবং জঙ্গি হামলায় নিহত সবার পরিবারকে আর্থিক সুবিধা দেয়ার নির্দেশ দেন। এ বিষয়ে অর্থমন্ত্রীর দেয়া এক নোটে প্রধানমন্ত্রী উল্লেখ করেন, ‘মাননীয় অর্থমন্ত্রীর প্রস্তাবের সঙ্গে একমত পোষণ করি। যারা হামলার শিকার হয়ে মৃত্যুবরণ করেছেন, তারা যে দেশেরই হোক, সকলকে আমরা সহায়তা করব।’ প্রধানমন্ত্রীর এ নির্দেশের ভিত্তিতে অর্থ মন্ত্রণালয় আবার নতুন করে বরাদ্দ দেয়।
গুলশানের হলি আর্টিজান বেকারিতে গত বছরের ১ জুলাই রাতে জঙ্গিরা ২০ জিম্মিকে হত্যা করে। এদের মধ্যে ৯ জন ইতালিয়ান, ৭ জন জাপানি, ৩ জন বাংলাদেশি এবং ১ জন ভারতীয়। এ ছাড়া সন্ত্রাসীদের হামলায় দুজন পুলিশও প্রাণ হারান। সব নিহতের পরিবারকে আর্থিক সহায়তা দেয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। প্রথমে শুধু নিহত নয় ইতালীয় নাগরিকের পরিবারকে আর্থিক সহায়তা দেয়ার প্রস্তাব করা হয়েছিল। এতে ব্যয় ধরা হয়েছিল ১ লাখ ৩৫ হাজার ইউরো (প্রায় ১ কোটি ২৩ লাখ টাকা)।
সূত্র জানায়, অপ্রত্যাশিত খাতে এ পরিমাণ অর্থ না থাকায় অর্থ বিভাগ জননিরাপত্তা বিভাগকে প্রধানমন্ত্রীর ত্রাণ তহবিল থেকে তা জোগান দেয়ার পরামর্শ দিয়েছিল। শেষ পর্যন্ত বিষয়টিতে আপত্তি জানান অর্থমন্ত্রী। তিনি এক নোটে লিখেন, ‘স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সিদ্ধান্ত নিল যে হলি আর্টিজানে সন্ত্রাসী হামলায় নিহত ইতালীয়দের পরিবারকে আর্থিক সহায়তা দেয়া হবে। তাদের মনেই হলো না যে এই সুবিধা সব ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারকে দেয়া উচিত। এ বিষয়ে জাপান সফরকালে কানাঘুষা শুনতে পাই যে, এরকম একটি ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে। এটি তখনই একটি বৈষম্যমূলক পদক্ষেপের নিন্দার বিষয় হয়ে দাঁড়ায়।’
গত ১৪ মে অর্থমন্ত্রীর দেয়া নোটের সঙ্গে একমত পোষণ করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা একই দিন প্রস্তাবে সম্মতি জানান এবং তাতে অনুমোদন দেন। ওই দিন তিনি অপর নোটে ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারের প্রতি সহানুভূতি জানিয়ে নিহত সব পরিবারকে আর্থিক সুবিধা দেয়ার নির্দেশ দেন। প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশের পরিপ্রেক্ষিতে অর্থমন্ত্রী এ ব্যাপারে  ব্যবস্থা নিতে সংশ্লিষ্টদের নির্দেশ দেন। সোমবার সে অর্থ ছাড় হয়েছে।
তথ্যসূত্র: রাইজিংবিডি