গুয়েতেমালায় আশ্রয় কেন্দ্রে আগুনে ২১ মেয়ে শিশুর মৃত্যু

আপডেট: মার্চ ১০, ২০১৭, ১২:০৬ পূর্বাহ্ণ

সোনার দেশ ডেস্ক



গুয়েতেমালায় নির্যাতিত শিশু ও কিশোরীদের একটি আশ্রয় কেন্দ্রে আগুনে অন্তত ২১ জনের মৃত্যু হয়েছে।
রাজধানী গুয়েতেমালা সিটি থেকে ২৫ কিলোমিটার দক্ষিণ-পশ্চিমের সান হোসে পিনুলা এলাকায় বুধবার ভোররাতে এ ঘটনা ঘটে।
পুলিশ জানিয়েছে, জনাকীর্ণ ওই আশ্রয় কেন্দ্রটির কিছু বাসিন্দা রাতে পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টাকালে কয়েকটি তোশকে আগুন ধরিয়ে দেয় বলে ধারণা করা হচ্ছে।
সরকার পরিচালিত ভিরহেন দ্য আসুনসিয়ন নামের আশ্রয় কেন্দ্রটির সামনে আশ্রিত শিশু-কিশোরীদের স্বজনরা জড়ো হয়ে বিলাপ করছিল। কেন্দ্রটিতে সর্বোচ্চ ১৮ বছর বয়স পর্যন্ত কিশোরীদের রাখা হতো।
আগুনে আহত অন্তত ৪০ জন চিকিৎসা নিচ্ছেন বলে জানিয়েছে স্থানীয় হাসপাতালগুলো। এ ঘটনায় তিন দিনের রাষ্ট্রীয় শোক পালনের ঘোষণা দিয়েছেন গুয়াতেমালার প্রেসিডেন্ট জিমি মোরালেস।
গুয়াতেমালার পুলিশ প্রধান নেরি রামোস জানিয়েছেন, মঙ্গলবার রাতে কেন্দ্রটিতে একটি দাঙ্গার ঘটনার পর পুলিশ গিয়ে দাঙ্গা থামায়। ওই সময় কেন্দ্রটির বহু বাসিন্দা পালিয়ে যায়, তাদের মধ্যে ৫৪ জনকে ধরে আনা হয়, যাদের অন্যদের থেকে আলাদা করে রাখে কর্তৃপক্ষ।  কিন্তু এরা কেন্দ্রটি থেকে পালানোর চেষ্টা অব্যাহত রাখে, এরমধ্যে এদের কেউ বা অন্য কেউ কয়েকটি তোশকে আগুন ধরিয়ে দেয়, এই আগুনই পরে পুরো কেন্দ্রটিতে ছড়িয়ে পড়ে।
যারা পালিয়ে যাওয়ার উদ্যোগ নিয়েছিল আর যারা আগুন লাগিয়েছে, তারা একই ব্যক্তি কিনা কর্তৃপক্ষ তা তদন্ত করে দেখছে বলে জানিয়েছেন রামোস।
গুয়াতেমালার গণমাধ্যমের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, কেন্দ্রটির ধারণক্ষমতা ৪০০ জন হলেও এতে ৫০০ জনকে রাখা হয়েছিল। দীর্ঘদিন ধরেই এ সমস্যা চলছিল।
ঘটনাস্থলে উপস্থিত ক্ষুব্ধ লোকজন জানিয়েছেন, কেন্দ্রটিতে নির্যাতন একটি নিয়মিত ঘটনা ছিল।- বিডিনিউজ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ