‘গৃহযুদ্ধ ঠেকাতে ক্ষমতা দখল করেছি’

আপডেট: অক্টোবর ২৭, ২০২১, ৭:৩২ অপরাহ্ণ


সোনার দেশ ডেস্ক:


সুদানের গৃহযুদ্ধ ঠেকাতেই সরকারকে উৎখাত করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন দেশটির সামরিক বাহিনীর প্রধান জেনারেল আব্দেল ফাত্তাহ আল-বুরহান।

স্থানীয় সময় মঙ্গলবার এক সংবাদ সম্মেলনে এ কথা জানান জেনারেল আব্দেল ফাত্তাহ।
কাতারভিত্তিক সংবাদমাধ্যম আল-জাজিরার প্রতিবেদনে বলা হয়, সোমবার সুদানের প্রধানমন্ত্রী আব্দুল্লাহ হামদুকসহ কয়েকজন মন্ত্রীকে গ্রেফতার করে সামরিক বাহিনীর সদস্যরা। এরপর মন্ত্রিসভা বাতিল করে দেশটির ক্ষমতা নেয় সেনাবাহিনী।

ক্ষমতা দখলের পর সংবাদ সম্মেলনে এসে জনগণের ক্ষোভ এবং উদ্বেগ কমানোর চেষ্টা করেন সামরিক বাহিনীর প্রধান। এ সময় তিনি বলেন, দ্রুতই বেসামরিক প্রশাসনের কাছে ক্ষমতা ফিরিয়ে দেওয়া হবে।

জেনারেল আব্দেল ফাত্তাহ আল-বুরহান বলেন, ‘আমরা গত সপ্তাহে দেশে যে বিপজ্জনক কর্মকা- দেখেছি, তার কারণে মন্ত্রিসভা ভেঙে দিতে এবং দেশের নিয়ন্ত্রণ গ্রহণ করতে এগিয়ে গেছি। এটা না হলে দেশে গৃহযুদ্ধ বেঁধে যাওয়ার আশঙ্কা ছিল। ’

চলতি সপ্তাহে বেসামরিক সরকারের কাছে ক্ষমতা হস্তান্তরের দাবিতে সুদানে বড় ধরনের বিক্ষোভ হয়। সেখানে অংশ নেন মন্ত্রিসভার কয়েকজন সদস্য।

এ বিষয়ে সামরিক বাহিনীর প্রধান বলেন, ‘আমরা সুদানের জনগণ এবং পুরো বিশ্ববাসীকে নিশ্চিত করছি, ক্ষমতা হস্তান্তরের অংশ হিসেবেই এ সমস্ত ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে এবং বেসামরিক প্রশাসনের কাছে ক্ষমতা হস্তান্তর নিশ্চিত করা হবে। ’
প্রসঙ্গত, ২০১৯ সালে সুদানের প্রেসিডেন্ট ওমর আল-বশিরকে ক্ষমতা থেকে সরিয়ে সামরিক বাহিনী এবং বেসামরিক গোষ্ঠী ক্ষমতার ভাগাভাগি করে নেয়। এরপর থেকে তারাই সুদান শাসন করে আসছিল।

চলতি বছরের সেপ্টেম্বরে ওমর আল-বশিরের অনুসারী সামরিক কর্মকর্তারা অভ্যুত্থানের চেষ্টা করে ব্যর্থ হন। এরপর থেকে দেশটিতে উত্তেজনা বেড়ে যায়।
ওই ঘটনায় সরকারের সামরিক ও বেসামরিক অংশগুলো বিভক্ত হয়ে পড়ে। উভয় পক্ষের মধ্যে দেখা দেয় আস্থার সংকট।

এরই মধ্যে সোমবার সুদানে জরুরি অবস্থা ঘোষণার কথা জানিয়ে টেলিভিশনে ভাষণ দেন আব্দেল ফাত্তাহ।
তথ্যসূত্র: বাংলানিউজ