গেইলকে নিয়ে ‘মধুর সমস্যায়’ চিটাগং ভাইকিংস

আপডেট: নভেম্বর ২৫, ২০১৬, ১১:১০ অপরাহ্ণ


সোনার দেশ ডেস্ক
চট্টগ্রাম পর্বে চার ম্যাচে তিন জয়ে টুর্নামেন্টে দারুণভাবে ফিরে এসেছে চিটাগং ভাইকিংস। ৮ ম্যাচে ৪ জয়ে পয়েন্ট টেবিলের চারে অবস্থান করছে তামিমের চিটাগং ভাইকিংস। সব মিলিয়ে তাই চট্টগ্রাম শিবিরে এখন স্বস্তির হাওয়া। ফ্র্যাঞ্চাইজি, টিম ম্যানেজমেন্ট থেকে শুরু করে খেলোয়াড়দের মধ্যে প্রবল একটা আত্মবিশ্বাস তৈরি হয়েছে। লিগ রাউন্ডে এখনও চারটি ম্যাচ বাকি আছে তাদের। এই চার ম্যাচ থেকে অন্তত তিনটিতে জিততেই হবে তাদেরকে। চারটিতে জিততে পারলে পয়েন্ট টেবিলের শীর্ষে উঠে যাওয়ার সুযোগ হয়তো পাওয়া যাবে।
লিগ পর্বের শেষ চার ম্যাচের জন্য টি-টোয়েন্টির ‘ফেরিওয়ালা’ ক্যারিবিয়ান ব্যাটিং দানব ক্রিস গেইলকে পাচ্ছে চিটাগং ভাইকিংস। গতকাল শুক্রবার বিকালে ঢাকায় এসেছেন ক্রিস গেইল। রোববার রংপুর রাইডার্সের বিপক্ষে প্রথম ম্যাচে মাঠে নামবেন এই ব্যাটিং দানব।
ক্রিস গেইল নাম লেখানোর পর মধুর সমস্যায় পড়েছে চিটাগং ভাইকিংস। সেরা একাদশে ক্রিস গেইল থাকবেন তো-এমন প্রশ্নটা উঠেছে আসলে ভাইকিংসে খেলা চার বিদেশি সবাই সেরা ফর্মে আছেন বলে। আর তাই তো একাদশ সাজাতে গিয়ে টিম ম্যানেজমেন্টকে কঠিন সমস্যার সামনে পড়তে হচ্ছে।
ডোয়াইন স্মিথ দারুণ ছন্দে আছেন। শোয়েব মালিক এবং মোহাম্মদ নবী চট্টগ্রামের প্রাণভোমরা হয়ে আছেন। শেষ ম্যাচেও স্মিথ-শোয়েব অসাধারণ পারফরম্যান্স করেছেন।
আফগান অলরাউন্ডার মোহাম্মদ নবী ব্যাটে-বলে সমান পারফরম করছেন। পেসার ইমরান খানও গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখছেন। গেইলকে খেলালে এই চারজন থেকে একজনকে বসিয়ে খেলাতে হবে চিটাগং টিম ম্যানেজমেন্টকে। কারণ বিপিএলের নিয়ম অনুযায়ী এক ম্যাচে চার জন বিদেশির বেশি খেলানো যাবে না।
চিটাগং হয়তো ফর্মে থাকা কোনও একজনকে বসিয়ে রেখেই ক্রিস গেইলেকে খেলাবে। সে হিসেবে কোপটা পড়তে পারে ডোয়াইন স্মিথের ওপরই। কেননা গত কিছুদিন ধরে তামিমের সঙ্গে ওপেন করছেন স্মিথ। গেইল একাদশে খেললে ওপেনিংয়েই খেলবেন। রোববার যাই ঘটুক না কেন, বর্তমানে চিটাগং শিবিরে একাদশ সাজানো নিয়ে চিন্তার ভাঁজ দেখা দিয়েছে। সৃষ্টি হয়েছে মধুর সমস্যার।
ঢাকায় প্রখম পর্বে চার ম্যাচের মধ্যে একটিমাত্র ম্যাচ জিতে বিশাল চাপের মধ্যে ছিলেন কোচ মোহাম্মদ সালাউদ্দিন, অধিনায়ক তামিম ইকবাল এবং খেলোয়াড়রা। সালাউদ্দিন নিজেই বুঝতে পারছিলেন না পরাজয়ের বৃত্ত থেকে দলটাকে কিভাবে বের করে আনবেন।
চট্টগ্রামে ১৮ নভেম্বর ছিল চট্টগ্রামের ঘুরে দাঁড়ানোর দিন। ওই দিন রাজশাহী কিংসকে ১৯ রানে হারিয়ে স্বস্তির নিঃশ্বাস ফেলে চিটাগং ভাইকিংস। এরপর তৃতীয় ম্যাচে কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স ও চতুর্থ ম্যাচে বরিশাল বুলসকে হারিয়ে পুরোপুরি বদলে যায় তামিমের চিটাগং ভাইকিংস।-বাংলা ট্রিবিউন

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ