গোদাগাড়ীতে মসজিদের ইমামকে বহিস্কারকে কেন্দ্র করে মুসল্লীদের মধ্যে উত্তেজনা II শুক্রবার জুম্মার নামাজে মারামারির আশঙ্কা

আপডেট: ফেব্রুয়ারি ২২, ২০২৪, ১০:২৭ অপরাহ্ণ


গোদাগাড়ী প্রতিনিধি:রাজশাহীর গোদাগাড়ীতে মসজিদের ইমামকে বহিস্কারকে কেন্দ্র করে মুসল্লীদের মাঝে উত্তেজনা বিরাজ করছে।পৌর এলাকার কেল্লারারুইপাড়া জামে মসজিদের ইমাম জসিমউদ্দীন বিন সমিরের বিরুদ্ধে জ্বিনের কবিরাজী করার ও মুসল্লিদের মধ্যে বিভেদ সৃষ্টি করায় তাকে কমিটি ইমাম পদ থেকে বহিস্কার করে। কিন্তু ইমাম জসিমউদ্দীন বিন সমির গুটি কয়েক জনের প্ররোচনায় জোর করে মসজিদে নামাজ পড়াতে যায়। এরপর কমিটির সাধারন সম্পাদক শফিকুল ইসলাম ইমাদের বিরুদ্ধে থানায় অভিযোগ করে। থানায় এসে ইমাম এবং কমিটির মাঝে সমঝোতা হলে দুই মাসের বেতন দিলে ইমাম সেচ্ছায় চাকরি ছেড়ে দেন। তবে কমিটির সাবেক সম্পাদক ও এক সদস্য ইমামকে চাকরিতে বহাল রাখার আশ্বাস দিয়ে ইউএনও কাছে পাঠায়। কমিটি ও ইমাম পুনরায় ইউএনওর কাছে বসে আগের সিদ্ধান্তের একমত হয়ে কমিটির সিদ্ধান্তকে মেনে নেন ইমাম।

মসজিদ কমিটির সাধারণ সম্পাদক শফিকুল ইসলাম বলেন,ইমাম জসিমউদ্দীন বিন সমির উর্দ্দা দিয়ে পান খাওয়া ও মিথ্যা কথা বলা,খুৎবা দিতে গিয়ে হাদিস কোরআনের মূল আলোচনা বাদ স্থানীয় রাজনীতি ও রাস্ট্র বিরোধী কথা বার্তা বলার অভিযোগ উঠায় কমিটির সকল সদস্য একমত হয়ে ইমামকে বাদ দেয়া হয়েছে। অস্থায়ীভাবে একজন ইমাম রেখে নামাজ পড়ানো হচ্ছে। শিগগিরই একজন ইমাম নিয়োগ নিয়োগ দেয়া হবে।
ইমাম জসিমউদ্দীন বিন সমির তার বিরুদ্ধে উঠা অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, কমিটি আমাকে অন্যায় ভাবে বাদ দিচ্ছে।
এদিকে মসজিদের ইমামকে কেন্দ্র মুসল্লীদের মাঝে উত্তেজনা সৃষ্টি প্রসঙ্গে গোদাগাড়ী মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আব্দুল মতিন বলেন,শুক্রবার (২৩ ফেব্রয়ারি) মসজিদে কোন ধরনের অরাজকতা করলে তার রিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ