গোদাগাড়ীতে আদিবাসী তরুণী ধর্ষণ চেষ্টা মামলা তুলে নিতে বাদীকে চাপ

আপডেট: আগস্ট ২৮, ২০১৭, ১২:৫৫ পূর্বাহ্ণ

গোদাগাড়ী প্রতিনিধি


রাজশাহীর গোদাগাড়ীতে আদিবাসী তরুণীকে ধর্ষণের চেষ্টা মামলার আসামিরা আটক হয় নি। স্থানীয় একটি প্রভাবশালী মহল আসামিদের সঙ্গে আপোষ করে মামলা তুলে নেয়ার জন্য আদিবাসী তরুণীর পরিবারকে চাপ দিচ্ছে বলে আদিবাসীরা অভিযোগ করেছেন।
স্থানীয় ও পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, গত বুধবার উপজেলার মোহনপুর ইউনিয়নের দিগরামে ফাঁকা মাঠে ২০ বছরের এক আদিবাসী তরুণীকে ধর্ষণের চেষ্টা চালায় চার যুবক। ওই দিনই আদিবাসী তরুণী বাদি হয়ে গোদাগাড়ী থানায় একটি মামলা দায়ের করে। পুলিশ মামলার এক নম্বর আসামি ও কাপাশিয়াপাড়া গ্রামের ফারুক মড়লের ছেলে রাসেলকে (৩৫) আটক করে। অন্য আসামিরা হলেন- কাপাশিয়াপাড়া গ্রামের নাইমূল হকের ছেলে ভুটু (৩৪), নেজাম আলীর ছেলে আতাউর (৩২), আবদুস সালামের ছেলে শফিকুল ইসলাম (৩০)।
মামলার বাদি আদিবাসী তরুণী অভিযোগ করেন, তিন আসামি এখনো আটক হয় নি। আসামিদের পক্ষ থেকে একটি প্রভাবশালী মহল ধর্ষণ চেষ্টার ঘটনাটি আপোষ করে মামলা তুলে নেয়ার জন্য চাপ সৃষ্টি করছে।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ