গোদাগাড়ীতে করোনার মধ্যে মরিয়ম বেগমের মাদক ব্যবসা

আপডেট: জুলাই ৯, ২০২০, ১০:১৭ অপরাহ্ণ

গোদাগাড়ী প্রতিনিধি:


রাজশাহীর গোদাগাড়ী পৌর এলাকা মহিশালবাড়ী মাদ্রাসা সংলগ্ন ডাড্ডি পাড়ায় অবাধে বেচাকেনা হচ্ছে মাদক। এই মাদক ব্যবসা নিয়ন্ত্রণ করছে ১০ মাদক মামলার আসামি মরিয়ম বেগম।
স্থানীয় লোকজন মাদ্রাসার শিক্ষক, শিক্ষার্থীরা জানান, প্রতিদিন ভোর ৫টা থেকে রাত ১২টা পর্যন্ত হেরোইন, ইয়াবার খুচরা বিক্রি করে মরিয়ম ও তার ভাড়া করা লোকজন। আর হেরোইন ইয়াবা ক্রয় করতে শতশত মাদক সেবী ডাড্ডি পাড়ায় ভীড় জমাচ্ছে। দূর-দূরান্ত এসব মাদক সেবীর আনাগোনাতে করোনা ভাইরাসের ঝুঁকিতে রয়েছে স্থানীয় লোকজন।

মাদকাসক্ত ইউনুস আলীর স্ত্রী মরিয়ম বেগমের মাদক কারবারে বাধা দিতে গিয়ে তার ভাড়া করা সন্ত্রাসীদের হুমকিতে স্থানীয় লোকজন কিছুটা ভীতগ্রস্ত হয়ে পড়েছে।
স্থানীয় লোকজন আরো জানান, মরিয়ম বেগম দীর্ঘদিন ধরে মাদক কারবারের সঙ্গে জড়িত থাকায় বিপুল পরিমাণের অর্থ বিত্তের মালিক হয়েছে। এরপর স্থানীয় লোকজনের অভিযোগের কারণে মাদকসহ মরিয়ম বেগম আটক হয়। তার বিরুদ্ধে গোদাগাড়ীসহ বিভিন্ন থানায় মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে ১০টি মামলা রয়েছে। মরিয়ম সর্বশেষ ২০১৯ সালের ১ মে মাদকসহ আটক হয় মরিয়ম বেগম থানার মামলা নম্বর ৪।
বর্তমান পরিস্থিতিতে অবাধে মাদক ব্যবসা চালিয়ে গেলেও মরিয়ম বেগমের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে না।

স্থানীয়ভাবে পরিবেশ ভালো রাখতে মরিয়ম বেগমের মাদক কারবারের বিষয়টি উপজেলা আইনশৃঙ্খলা কমিটির সভায় উঠানো হয়। এরপর প্রশাসন এ এলাকায় অভিযানে গেলে মরিয়ম বেগম আত্মগোপনে চলে যায়। অভিযান শেষে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা চলে গেলে আবারো শুরু হয় মরিয়ম বেগমের মাদক কারবার।
এ প্রসঙ্গে গোদাগাড়ী মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ(ওসি) খাইরুল ইসলাম বলেন, মরিয়মের মাদকের কারবারের বিষয়টি জানা নেই। তবে মরিয়মের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ