গোদাগাড়ীতে স্ত্রীকে হত্যা চেষ্টার অভিযোগে গ্রাম্য চিকিৎসকসহ গ্রেফতার দুই

আপডেট: আগস্ট ৮, ২০১৭, ১:৪৯ পূর্বাহ্ণ

গোদাগাড়ী প্রতিনিধি


রাজশাহীর গোদাগাড়ীতে স্ত্রীকে হত্যা চেষ্টার অভিযোগে এক গ্রাম্য চিকিৎসকসহ দুই জনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। গত সোমবার গ্রাম্য চিকিৎসক আবদুল হান্নান (৬০) ও তার দ্বিতীয় স্ত্রী রাহেলা বেগমকে (৪৮) গ্রেফতার করা হয়।
স্থানীয় ও পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, গত রোববার দিবাগত রাতে উপজেলার বাসুদেবপুর ইউনিয়নের হাতনাবাদ গ্রামের মৃত জয়নাল আবেদীনের ছেলে ও গ্রাম্য ডাক্তার আবদুল হান্নান দ্বিতীয় স্ত্রীর সহযোগিতায় প্রথম স্ত্রী সেতারা বেগমকে শ্বাসরুদ্ধ করে হত্যার চেষ্টা চালায়। গতকাল সোমবার সকাল ৮টার দিকে বাড়ির পাশে সেতারাকে অচেতন অবস্থায় উদ্ধার করে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল (রামেকে) ভর্তি করে স্থানীয় লোকজন। পরে পুলিশ গ্রাম্য চিকিৎসক আবদুল হান্নান (৬০) ও তার দ্বিতীয় স্ত্রী রাহেলা বেগমকে (৪৮) আটক করে। সেতারা বেগমের মেয়ে বিলকিস খাতুন লিপি বাদী হয়ে গোদাগাড়ী মডেল থানায় একটি মামলা দায়ের করেছে। এই মামলায় তার বাবা আবদুল হান্নান ও সৎ মা রাহেলা বেগমকে আসামি করা হয়।
এ বিষয়ে গোদাগাড়ী থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) হিপজুর আলম মুন্সি বলেন, দুই বছর আগে আবদুল হান্নান দ্বিতীয় স্ত্রী রাহেলা বেগমকে বিয়ে করে। বাড়িতে প্রথম ও দ্বিতীয় স্ত্রীকে নিয়েই বসবাস করে আসছিল। ঘটনার আগের দিন তার প্রথম স্ত্রী সেতারা বেগম ও দ্বিতীয় স্ত্রী রাহেলা বেগমের মধ্যে ঝগড়াঝাটি হয়। রোববার সকালে আবদুল হান্নান দ্বিতীয় স্ত্রী রাহেলা বেগমকে তার বাবার বাড়িতে রাখতে যায়। কিন্তু রোববার দিবাগত রাতে আবদুল হান্নান ও তার দ্বিতীয় স্ত্রীর বাড়িতে ফিরে এসে প্রথম স্ত্রী সেতারা বেগমকে মারধর করে এবং গলায় রশি পেচিয়ে হত্যার চেষ্টা চালায়। সেতারা বেগম মারা গেছে নিশ্চিত হয়ে আবারো বাড়ি ছেড়ে চলে যায় আবদুল হান্নান ও রাহেলা বেগম। তার চার মেয়ের মধ্যে তিন মেয়ের বিয়ে হয়ে গেছে। আর এক মেয়ে রাজশাহী কলেজে লেখাপড়া করে। সকালে খবর পেয়ে মেয়েরা বাড়িতে যায় এবং দ্বিতীয় মেয়ে বিলকিস খাতুন লিপি বাদী হয়ে মামলা দায়ের করেন।