গোপালগঞ্জে ও চট্টগ্রামে সড়কে প্রাণ গেল ১২ জনের

আপডেট: মে ২৬, ২০১৭, ১২:৫৬ পূর্বাহ্ণ

সোনার দেশ ডেস্ক


গোপালগঞ্জ সদর ও চট্টগ্রামের চন্দনাইশ উপজেলায় পুথক দুটি ১২ জনের মৃত্যু হয়েছে।
গোপালগঞ্জে মাইক্রোবাস ও অটোরিকশার সংঘর্ষে পুলিশের এক এএসআইসহ ছয়জন নিহত হয়েছে। আহত হয়েছে আরও একজন।
বৃহস্পতিবার বেলা ১২টার দিকে শহরতলীর চেচানিয়াকান্দি এলাকায় ঢাকা-খুলনা মহাসড়কে এ দুর্ঘটনা ঘটে বলে গোপালগঞ্জ সদর থানার ওসি মো. সেলিম রেজা জানান।
নিহতরা হলেন সদর থানার এএসআই দেলোয়ার হোসেন (৩২), অটোরিকশার চালক শহরের পূর মিয়াপাড়ার আলতাব শেখের ছেলে আজাদ শেখ (২৬), সদর উপজেলার চর গোবরা গ্রামের আবুল কাশেম মোল্লার ছেলে মুজাহিদ মোল্লা (৩৫), কুলসুম (২৫) ও সুমাইয়া (১৭)।
আহত লিপন সরদারকে (২৫) গোপালগঞ্জ সদর হাসপতালে ভর্তি করা হয়েছে।
ওসি জানান, খুলনাগামী মাইক্রোবাসের সামনের একটি চাকা ফেটে গেলে চালক নিয়ন্ত্রণ হারায়। এ সময় মাইক্রোটি বিপরীত দিক থেকে আসা অটোরিকশাকে ধাক্কা দিলে এএসআই দেলোয়ার, অটো চালক আজাদ শেখসহ তিনজন ঘটনাস্থলেই নিহত হয়।
আহত চারজনকে গোপালগঞ্জ সদর হাসপাতালে নেওয়া হলে সেখানে আরও তিনজনের মৃত্যু হয় বলে জানান ওসি।
চট্টগ্রামে নিহত ৫
চট্টগ্রামের চন্দনাইশ উপজেলায় ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে ট্রাক ও মাইক্রোবাসের মুখোমুখি সংঘর্ষে ছয়জন নিহত হয়েছেন। এতে আহত হয়েছেন আটজন।
বৃহস্পতিবার বিকেল ৪টার দিকে চন্দনাইশের কসাইপাড়া পাঠানপোল এলাকায় এই দুর্ঘটনা ঘটে। নিহতদের চারজন হলেন- আব্দুল মতলব (৫০), ফরিদ উদ্দিন (৪৫), চয়ন (৫) ও হাজেরা বেগম (৬৫)। আল আমিন (৩৫) ও মুনর আহমদ (৪০)।
চন্দনাইশ থানার এসআই দেলোয়ার হোসেন দুর্ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে রাইজিংবিডিকে বলেন, কক্সবাজার থেকে চট্টগ্রাম অভিমুখী দ্রুতগামী ট্রাকের সঙ্গে বিপরীতমুখী যাত্রীবাহী মাইক্রোবাসের মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়েছে। এতে মাইক্রোবাসটি ধুমড়ে-মুচড়ে গেছে। এতে ঘটনাস্থলে মাইক্রোবাসের পাঁচ যাত্রী নিহত হয়েছে। আহত হয়েছে আটজন।
আহতদের চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। এদের কয়েকজনের অবস্থা আশঙ্কাজনক বলে জানিয়েছে পুলিশ।
তথ্যসূত্র: বিডিনিউজ, রাইজিংবিডি