গোপাল ভোগে জমজমাট বানেশ্বরের আমের হাট

আপডেট: মে ২৩, ২০২২, ১২:২৮ পূর্বাহ্ণ

মানিক হোসেন:


গুটি জাতের আমের ভিড়ে গোপাল ভোগের বেশ কদর বাজারে। খেতে মিস্টি ও সুস্বাদু এই আমটি বিক্রি হচ্ছে ১৫০০ থেকে ১৯০০ টাকা মণ দরে। আগামি ২৫ মে বাজারে আসবে রাণীপছন্দ।

সোমবার (২২ মে) সরেজমিনে জেলার পুঠিয়ার বানেশ্বর হাটে আমের জমজমাট বেচাকেনার চিত্র দেখা গেছে।
এই হাটে রাজশাহী বিভাগের দূর্গাপুর, পুঠিয়া, বিড়ালদহ, আলীপুর, শিবপুর, চারঘাট, শরদাহ, বুধপাড়া, কাঁকনহাট, পুঠিকান্দ্রা, ভড়–য়াপাড়া, বিলপুকুর, কাটাখলি, আমগাছি, শাহাবাজপুর, ফতেপুর মাড়িয়াসহ বিভিন্ন জায়গার আম ব্যবসায়ীরা আম তুলেছেন বিক্রির জন্য। এখানে রাজশাহী ছাড়াও চট্টগ্রাম, খুলনা, কুমিল্লা, যশোর, ফেনী, চৌমুহনী, গাইবান্দা, বগুড়া, রংপুর, সিলেটসহ বিভিন্ন অঞ্চলের ব্যবসায়ীরা এসেছেন।

ব্যবসায়ীরা জানায়, গতবছরে করোনাকালিন সময়ে ব্যবসায়ীরা ব্যবসায় লাভ করতে পারেন নি। এবছর আবহাওয়া ভালো থাকায় আমের ব্যবসা ভালো হবে এই আশায় ব্যবসায়ীরা চুক্তিভিত্তিকভাবে ৭ থেকে ১৫ টি বাগান নিয়েছেন। এবছরের ১৩ মে গোপাল ভোগ আম বাজারে আসে। প্রথম দিনেই প্রতিমণ গোপালভোগ আম ২ হাজার থেকে ২ হাজার ২০০ টাকা মণ হাঁকিয়েছেন ব্যবসায়ীরা। সেই আম বর্তমানে প্রতিমণে ১ হাজার ৫০০ থেকে ১ হাজার ৯০০ টাকায় বিক্রি হয়েছে।

গোপাল ভোগের দাম জানায়Ñ আড়ৎদ্বার সুমন শেখ। তিনি বলেন, সাতক্ষীরা ও টাঙ্গাইল থেকে আম ঢাকার বাজারে যাওয়ায় চাহিদা একটু কম । তবে, আমের সরবরাহ বাড়বে। এবছর ভালো ব্যবসা হবে বলে আশা করা যাচ্ছে।

দূর্গাপুর উপজেলা থেকে ইয়ামিন নামের একজন আম নিয়ে এসেছেন। তিনি জানান, প্রতিবছর ১০ থেকে ১৫ টি বাগান ২ লাখ টাকায় চুক্তিকারে নিয়ে থাকি। গতবছর ব্যবসা ভালো হয়নি। তবে লোকসানও হয়নি।

গোপাল ভোগ ছাড়াও এই বাজারে আটিঁর আমের মধ্যে রতœা, তুতাপড়ি, আধাসুন্দরীসহ অন্যান্য গুটি বা আটিঁর আম পাওয়া যাচ্ছে। এই আমগুলোর দর একেক রকম। তবে ৮০০ থেকে ১ হাজার ৫০০ টাকা মণ বেচাকেনা হচ্ছে।

কানপাড়ার আম চাষী বিক্রেতা ইয়ামনি আলী বলেন, আটিঁর আম ৪ মে থেকে পাকতে শুরু করেছে তবে বিক্রির জন্য ২০ মে থেকে বাজারে ওঠানো হয়েছে। ভালো বিক্রি হচ্ছে। আজ ২০ ক্যারেট আম নিয়ে এসেছি। প্রতি ক্যারেটে ২০ কেজির মত আম থাকে।

বাজারের আড়ৎদ্বার আকবর আলী জানান, প্রতিদিন এই বাজারে ৫০ টি গাড়িতে করে আম আসে। আনুমানিক ৫ থেকে ৭ হাজার ক্যারেট আম আনা হয়। দিনের পর দিন আরও বাড়বে এবং জমে উঠবে ৯০ সাল থেকে আমের বাজার হিসেবে খ্যাত রাজশাহীর বানেশ্বর বাজার।

প্রসঙ্গত, কৃষকেরা ভাগ, ২৫ মে রাণীপছন্দ, ২৮ মে খিরসাপাত-হিমসাগর, ৬ জুন ল্যাংড়া, ১৫ জুন আম্রপালি ও ফজলি, ১০ জুলাই বারি-৪ ও আশ্বিনা, ১৫ জুলাই গোলমতী, ২০ আগস্ট ইলমতি আম নামাতে পারবেন।