গোমস্তাপুরে মাদ্রাসার দুই শিক্ষককে মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস জানার রায়

আপডেট: ফেব্রুয়ারি ১, ২০২২, ৯:২৯ অপরাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক:


জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী অনুষ্ঠানে লাইভে এসে কেকের বদলে রুটি কেটে অবজ্ঞাসূচক শব্দ উচ্চারণের অভিযোগে করা ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের মামলায় দুই মাদ্রাসা শিক্ষককে এক বছরের প্রবেশন রায় দিয়েছে আদালত। আর এই প্রবেশনকালীন এই দুই শিক্ষককে জানতে হবে- মহান মুক্তিযুদ্ধ ও বঙ্গবন্ধু সম্পর্কে।

আদালত জাতির পিতার লেখা ‘অসমাপ্ত আত্মজীবনী’, ‘কারাগারের রোজনামচা’ ও ‘আমার দেখা নয়াচীন’ এবং মুক্তিযুদ্ধের ওপর লেখা ‘একাত্তরের দিনগুলি’ ও ‘একাত্তরের চিঠি’ বইগুলো পড়া ও তা অন্যান্য শিক্ষক ও শিক্ষার্থীদের জানানোর রায় দিয়েছেন। মঙ্গলবার (১ ফেব্রুয়ারি) দুপুরে রাজশাহী সাইবার ট্রাইব্যুনালের বিচারক জিয়াউর রহমান এ রায় ঘোষণা করেন।

প্রবেশনপ্রাপ্তরা হলেন, চাঁপাইনবাবগঞ্জের গোমস্তাপুর উপজেলার বৈরতলা দাখিল মাদ্রাসার সুপার আব্দুস সালাম ও সহকারী শিক্ষক গোলাম কবির।

রায়ে আরও উল্লেখ করা হয়, শর্ত ভাঙলে ও তাদের আচরণ সন্তোষজনক না হলে প্রবেশন আদেশ বাতিল হবে। অপরাধের শাস্তি হিসেবে তাদের ২০১৮ সালের ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের ২১/৩১ ধারায় এক বছর করে সশ্রম কারাদ-সহ এক লাখ টাকা করে জরিমানা, অনাদায়ে আরও এক মাস বিনাশ্রম কারাদ- ভোগ করতে হবে। এছাড়াও প্রবেশনকালীন পরিবেশের প্রতি দায়িত্বশীল হিসেবে তাদের প্রত্যেককে ২০ টি করে গাছ লাগাতে বলা হয়েছে। তাদের প্রবেশনকালীন কর্মকা- পর্যবেক্ষণ ও আদালতে প্রতিবেদন দাখিলের জন্য চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা প্রবেশন কর্মকর্তাকে দায়িত্ব দেয়া হয়েছে।

গত বছরের ১৭ মার্চ জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী পালন অনুষ্ঠানে ১০ টাকা দামের কেক কেটে শিক্ষার্থীদের খাওয়ান বৈরতলা দাখিল মাদ্রাসার সুপার আব্দুস সালাম। এ সময় হাসি-তামাশা ও ব্যঙ্গাত্মক শব্দ উচ্চারণ করেন। এ ঘটনা গোলাম কবির তার মোবাইল ফোনের মাধ্যমে এই অনুষ্ঠান সরাসরি সম্প্রচার করেন।

এ ঘটনায় আইনশৃঙ্খলা অবনতির আশঙ্কায় একই বছরের ১৭ মার্চ ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ইউনুস আলী গোমস্তাপুর থানায় ডিজিটাল আইনে ১১ জনের বিরুদ্ধে মামলা করেন। পরে মামলায় জব্দ বিভিন্ন আলামত ঢাকায় সিআইডির ফরেনসিক ল্যাবে পরীক্ষা-নিরীক্ষার পর ১৬ সেপ্টেম্বর আদালতে ১১ জনের বিরুদ্ধে চার্জশিট দাখিল করেন তদন্ত কর্মকর্তা। এ ঘটনায় অন্য ৯ আসামির বিরুদ্ধে অভিযোগ প্রমাণিত না হওয়ায় তাদের বেকসুর খালাস দেয়া হয়।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ