গোল্লায় যাচ্ছে বাড়ির ছেলেরা, চোলাইয়ের ভাটি ভাঙলেন নারীরা

আপডেট: অক্টোবর ২৭, ২০১৬, ১০:৫৪ অপরাহ্ণ


সোনার দেশ ডেস্ক
বারবার অনুরোধ করেও কাজ হয়নি৷ অবশেষে চোলাই মদের ভাটি ভেঙে গুঁড়িয়ে দিলেন আদিবাসী গ্রামের নারীরা৷ বুধবার নবগ্রাম থানার শিবপুর গ্রাম পঞ্চায়েতের জামাইপাড়া, শ্বশুরপাড়া গ্রামের গজিয়ে ওঠা এইসব ভাটি ভেঙে নজির গড়লেন খয়রাগাছি গ্রামের আদিবাসী নারীরা৷ পাশাপাশি অভিযোগ উঠেছে, এই নারীদের অভিযানে বারবার স্থানীয় প্রশাসনকে ডাকা হলেও তাদের পক্ষ থেকে কোনও সাড়া মেলেনি৷ সন্ধের পর অবশ্য এলাকায় যান আধিকারিকরা৷
জামাইপাড়া আর শ্বশুরপাড়া৷ নবগ্রাম থানার এই দুটি পাড়ায় চোলাই মদের রমরমা৷ এই চোলাইয়ের কারবার করতে গিয়ে বেশ কয়েকবার উত্তেজনা ছড়িয়েছে এলাকায়৷ তারপরেও প্রশাসনকে শক্ত হতে দেখা যায়নি বলে অভিযোগ৷ এদিকে, এই দুই গ্রামের পাশেই খয়রাগাছির বাসিন্দাদের অভিযোগ, এলাকায় চোলাই মদের রমরমা৷ বাড়ির ছেলেগুলো গোল্লায় যাচ্ছে এই কারণে৷ খয়রাগাছির নারীদের অভিযোগ, ঘরের ছেলেগুলো দিনভর যা আয় করে দিনের শেষে মদের ঠেকে গিয়েই শেষ করে আসে৷ এ নিয়ে স্থানীয় প্রশাসন, গ্রাম পঞ্চায়েতের কাছে দরবার করে কোনও সুরাহা না পেয়ে শেষপর্যন্ত খয়রাগাছি গ্রামের কয়েকশো নারীদের ক্ষোভ আছড়ে পড়ে চোলাই তৈরির ওই গ্রাম দুটির উপর৷
ভেঙে চুরমার করা হয় চোলাইয়ের ভাটি৷ উদ্ধার করা হয় কয়েকশো লিটার চোলাই, চোলাই তৈরির কাঁচামাল এবং চোলাই তৈরির সরঞ্জাম৷ এদিকে, বিপুল পরিমাণ চোলাই রাজ্য অন্তঃশুল্ক দফতরের হাতে তুলে দেয়ার জন্য বারবার ওই দফতরের কর্তাদের ডাকা হলেও তাঁরা এদিন সন্ধ্যা পর্যন্ত ওই এলাকায় পৌঁছননি বলে ক্ষোভপ্রকাশ করেন লক্ষ্মী মা-ি, দুর্গা মুর্মু, মায়া মা-িরা৷ তাঁদের অভিযোগ, ওই চোলাইয়ের কারখানা ভাঙার জন্য স্থানীয় পঞ্চায়েতকে জানিয়ে কোনও ফল না হওয়ায় শেষপর্যন্ত তাঁরা নিজেরা হাত লাগালেন৷ কিন্তু প্রশাসন এদিনও পাশে দাঁড়াল না৷
সন্ধ্যা নাগাদ অন্তঃশুল্ক দফতরের নবগ্রামের দায়িত্বপ্রাপ্ত অমিতকুমার দে উপস্থিত হয়ে উদ্ধার হওয়া চোলাই দখলে নেন৷ তিনি বলেন, আগামী দিনে এই এলাকায় অভিযান চলবে৷- সংবাদ প্রতিদিন

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ