গ্যাস সিলিন্ডার বিষ্ফোরণে সাত শিশু নিহত সিলিন্ডারের মান যাচাই হয় না কেন?

আপডেট: নভেম্বর ১, ২০১৯, ১:০৪ পূর্বাহ্ণ

রাজধানীর মিরপুরের রূপনগরে বেলুন ফোলানোর গ্যাস সিলিন্ডার বিস্ফোরণে সাত শিশু মারা গেছে। আহত হয়েছে বেশ কয়েকজন। ৩০ অক্টোবর বেলা ৩টার দিকে এই ঘটনা ঘটে। এই মর্মান্তিক ঘটনা দৈনিক সোনার দেশসহ দেশের প্রায় সংবাদ মাধ্যমে প্রকাশিত ও প্রচারিত হয়েছে। এর আগেও বেলুন ফোলানোর গ্যাস সিলিন্ডার বিস্ফোরণে মৃত্যুর ঘটনা আছে। ঘটনার সময় বিষয়টি দারুন উদ্বেগের সৃষ্টি করলেও ঘটনা এড়ানোর মতো কোনো উদ্যোগ নেয়া হয় না। বেলুন ফোলানোর গ্যাস সিলিন্ডার জনসমাগমে ব্যবহার করা কতটুকু নিরাপদ, আদৌ নিরাপদ কিনা- সে ব্যাপারের সরকারের সংশ্লিষ্ট দপ্তরের কোনো ভূমিকা আছে বলে মনে হয় না। ভূমিকা থাকলে এ ধরনের ঘটনার পুনরাবৃত্তি হতো না।
বেলুন এমন একটি আনন্দ-স্মৃতি যা প্রতিটি বয়োপ্রাপ্ত মানুষের অভিজ্ঞতায় আছে। এমন মানুষ খুব কমই খূঁজে পাওয়া যাবেÑ যাকে শিশুকালে বেলুন আকৃষ্ট করেনি কিংবা বেলুন নিয়ে খেলেনি। বেলুন দেখে শিশু-কিশোরদের প্রবল আকর্ষণ তৈরি হয়। গ্যাস সিলিন্ডার ভর্তি সে ভ্যানের দিকে তারা ছুটে যায়। কিন্তু এই গ্যাস সিলিন্ডার যে কোনো সময় ডেকে আনতে পারে ভয়াবহ বিপদ। যেমনটা ঘটেছে বুধবার ঢাকার রূপনগরে বেলুনের গ্যাস সিলিন্ডার বিস্ফোরণের মাধ্যমে। সে বিস্ফারণে সাতটি শিশু প্রাণ ঝরে গেছে।
বিশেষজ্ঞরা বলছেন, সাধারণত বেলুনে হিলিয়াম গ্যাস ব্যবহার করার কথা। কিন্তু বাস্তবিকই তা হচ্ছে না। বর্তমানে বেলুন বিক্রেতারা হিলিয়াম গ্যাসের পরিবর্তে হাইড্রোজেন গ্যাস ব্যবহার করছেন। যে সিলিন্ডারের ভেতরে হাইড্রোজেন গ্যাস থাকে সেখান থেকে যদি গ্যাস নির্গত হয় তাহলে বিস্ফোরণের ঝুঁকি অনেক বেড়ে যায়। কিন্তু হিলিয়াম গ্যাস থাকলে বিপদ ততটা থাকে না। বিশেষজ্ঞদের মতে হাইড্রোজেন গ্যাস সহজে বানানো যায়। কিন্তু হিলিয়াম গ্যাস সহজে বানানো যায়না। তাছাড়া হাইড্রোজেন গ্যাসের দামও কম। একটা হিলিয়াম গ্যাস সিলিন্ডারের দাম এক লাখ টাকা। অথচ একটি হাইড্রোজেন গ্যাস সিলিন্ডারের দাম ৬০-৬৫ হাজার টাকা। ফলে ফেরিওয়ালা বেলুন ফোলানোর জন্য হাইড্রোজেন গ্যাস সিলিন্ডারই ব্যবহার করে থাকে।
গ্যাস ব্যবহার করার ক্ষেত্রে সিলিন্ডার একটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। সিলিন্ডারের মান ভালো না থাকায় প্রায়শই সিলিন্ডার বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটে। এটি সব ক্ষেত্রের গ্যাস সিলিন্ডার ব্যবহারকারীর জন্য প্রযোজ্য। কিন্তু এগুলির মান নিয়ন্ত্রণ করবে যারা তারা এ ব্যাপারে কতটুকু উদ্যোগী? রাস্তাঘাটে যেভাবে সিলিন্ডারে গ্যাস ভরে বেলুন বিক্রি করা হচ্ছে সেদিকে অবশ্যই নজর দিতে হবে। সব ধরনের উচ্চচাপের গ্যাস সিলিন্ডার – হিলিয়াম, এলপিজি, সিএনজি এবং হাইড্রোজেন – সতর্কতার সাথে ব্যবহার করা উচিত। রাস্তাঘাটে বেলুন বিক্রেতারা যাতে হাইড্রোজেন গ্যাস ব্যবহার করতে না পারে সে ব্যাপারে ব্যবস্থা নিতে হবে। এসব সিলিন্ডারের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেবার জন্য আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীকে আরো তৎপর হওয়া দরকার।
সিলিন্ডারের মান ঠিক আছে কিনা সেটি দেখভালে বাংলাদেশ বিস্ফোরক পরিদপ্তরকে ভূমিকা রাখতে হবে।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ