‘গ্রহণযোগ্য নির্বাচন কমিশন গঠনে আইন প্রণয়ন করতে হবে’

আপডেট: নভেম্বর ২৪, ২০১৬, ১২:০২ পূর্বাহ্ণ

রাবি প্রতিবেদক



‘গণতান্ত্রিক সরকার গঠনের প্রধান শর্ত একটি গ্রহণযোগ্য, স্বাধীন ও শক্তিশালী নির্বাচন কমিশন। যথাযথ আইনি কাঠামো অনুসরণ করে যোগ্য ও নিরপেক্ষ নির্বাচন কমিশনার নিয়োগের কোনো বিকল্প নেই। কিন্তু দেশে সেরকম কোনো আইন নেই। গ্রহণযোগ্য নির্বাচন কমিশন গঠন করতে তাই একটি সুস্পষ্ট আইন প্রণয়ন করতে হবে।’
রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে ‘বাংলাদেশে প্রধান নির্বাচন কমিশনার এবং নির্বাচন কমিশনার নিয়োগ’ শীর্ষক গোলটেবিল আলোচনায় বক্তারা এসব কথা বলেন। বিশ্ববিদ্যালয়ের লোক প্রশাসন বিভাগ এবং ইলেকশন ওয়ার্কিং গ্রুপ (ইডাব্লিউজি) এর উদ্যোগে গতকাল বুধবার বেলা ১১ টায় রবীন্দ্র কলা ভবনের শিক্ষক লাউঞ্জে এ আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়।
বক্তারা আরো বলেন, অবাধ, সুষ্ঠু ও বিশ্বাসযোগ্য নির্বাচনের জন্য একটি স্বাধীন নির্বাচন কমিশন আমাদের একান্ত কাম্য। নির্বাচন কমিশনারদের স্বাধীনতা এবং সততা এর জন্য অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। সংবিধানে প্রধান নির্বাচন কমিশনার এবং নির্বাচন কমিশনার নিয়োগ সংক্রান্ত আইন প্রণয়নের কথা বলা থাকলেও এখন পর্যন্ত কোনো আইন প্রণয়ন করা হয়নি।
বক্তারা আগামী নির্বাচন কমিশন গঠনের আগেই শিগগিরই নির্বাচন কমিশনার নিয়োগ সংক্রান্ত আইন প্রণয়নের সুপারিশ করেন।
বক্তারা সুপারিশ করেন, সংবিধানে রাষ্ট্রপতি প্রধান নির্বাচন কমিশনার ও অন্যান্য নির্বাচন কমিশনারকে নিয়োগদান করবেন বলা থাকলেও এসব পদে নিয়োগের কোন যোগ্যতা অথবা নিয়োগ প্রক্রিয়া নিয়ে কোন কিছু বলা নেই। সুতরাং সংবিধান সংশোধন করে সেখানে কমিশনারদের যোগ্যতা ও নিয়োগ প্রক্রিয়া অন্তর্ভুক্ত করা হোক।
লোক প্রশাসন বিভাগের সভাপতি ড. পারভেজ আজহারুল হকের সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় বক্তব্য  দেন, আইন অনুষদের ডিন অধ্যাপক ড. আবু নাসের মো. ওয়াহিদ, আইন বিভাগের অধ্যাপক ড. বেগম আসমা সিদ্দীকা, অধ্যাপক ড. এম আনিসুর রহমান, জাতীয় পার্টির রাজশাহী মহানগর কমিটির সাধারণ সম্পাদক ড. আবু ইউসুফ সেলিম, বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টির রাজশাহী মহানগর সম্পাদকম-লীর সদস্য সদরুল ইসলাম, মুক্তিযুদ্ধের চেতনা বাস্তবায়ন কমিটি রাজশাহী শাখার সাধারণ সম্পাদক আবুল কালাম আজাদ, রাজশাহী মহানগর বিএনপির দফতর সম্পাদক গোলাম মোস্তফা মামুন, দৈনিক সোনার দেশের ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক আকবারুল হাসান মিল্লাত, এডাব্লিউজির পরিচালক ড. আবদুল আলীম, এসোসিয়েশন ফর কমিউনিটি ডেভলেপমেন্ট এর প্রকল্প সমন্বয়ক এহসানুল আমিন ইমন প্রমুখ।
স্বাগত বক্তব্য দেন, লোক প্রশাসন বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ড. শাফিউল ইসলাম। সঞ্চালনা করেন বিভাগের সহকারী অধ্যাপক ড. ফারাহা নওয়াজ। আলোচনা সভার সার্বিক সহযোগিতায় ছিলো এসোসিয়েশন ফর কমিউনিটি ডেভেলপমেন্ট।