ঘরের মাঠে বাংলাদেশ অপ্রতিরোধ্য : সাকিব

আপডেট: আগস্ট ২৩, ২০১৭, ১২:৪৯ পূর্বাহ্ণ

সোনার দেশ ডেস্ক


পাকিস্তান পাত্তা পায়নি, উড়ে গেছে দক্ষিণ আফ্রিকা, ভারতও পেয়েছে লজ্জা-স্বাগতিক বাংলাদেশের সামনে মাথা নিচু করেছে ক্রিকেট বিশ্বের শক্তিশালী এই দলগুলো। ২০১৫ সালের বিশ্বকাপের পর বদলে যাওয়া বাংলাদেশ এখন যে কোনও দলের মাথা ব্যথার কারণ। ওয়ানডের সঙ্গে সঙ্গে টেস্ট ক্রিকেটেও পরিণত বাংলাদেশ ঘরের মাঠে ইংল্যান্ডের মতো দলকে হারিয়ে লিখেছে ইতিহাস। বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসানের তাই বলতে বাধল না ‘ঘরের মাঠে বাংলাদেশ অপ্রতিরোধ্য’ কথাটা। অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে দুই ম্যাচের টেস্ট সিরিজ শুরুর আগে ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম ‘দ্য গার্ডিয়ান’কে দেওয়া সাক্ষাৎকারের মাধ্যমে সতর্কবার্তা পাঠিয়ে রাখলেন তিনি সফরকারীদের জন্য।
১১ বছর পর বাংলাদেশে টেস্ট সিরিজ খেলতে এসেছে অস্ট্রেলিয়া। ২০০৬ সালে প্রথম ও শেষবার যখন রিকি পন্টিংয়ের অধীনে এসেছিল সফরকারীরা, তখন টেস্ট ক্রিকেটে রীতিমত সংগ্রাম করতো টাইগাররা। তবে নিজেদের লড়াই আর ইচ্ছাশক্তি দিয়ে বাংলাদেশ এখন অনেক পরিণত। কাজটা যে এবার অনেক কঠিন হবে, সেটা জানে স্টিভেন স্মিথরাও। জানার সেই জায়গায় কোনও কমতি থেকে থাকলে, সেটাও পূরণ করে দিলেন সাকিব। প্রথম টেস্টের আগে তার ঘোষণা, ‘ঘরের মাঠে বাংলাদেশ অপ্রতিরোধ্য দল।’
২০০০ সালে টেস্ট মর্যাদা পায় বাংলাদেশ। শুরুতে ভীষণ ভুগেছে টাইগাররা। এমনও অনেক টেস্ট গেছে, যেখানে তিন দিনেই হেরেছে তারা। সেই জায়গা থেকে ঘুরে দাঁড়িয়ে এখন বাংলাদেশ পাঁচ দিনের ক্রিকেটে নামে জয়ের লক্ষ্য নিয়ে। ‘দ্য গার্ডিয়ান’-এর কাছে সাফল্যময় এই ভ্রমণের বর্ণনা করেছেন সাকিব এভাবে, “আগে বড় দলগুলোর বিপক্ষে আমাদের মানসিকতা ছিল ড্রয়ের- চেষ্টা করতাম পাঁচ দিন খেলে ড্র করার। আমরা কখনোই ফলের চিন্তা করতাম না। এরপর চিন্তা করা শুরু করি ‘জয়ের জন্য চেষ্টা করি না- এরপরই আমাদের জেতা শুরু।’ মানসিকতার পরিবর্তনের সঙ্গে আমাদের বিশ্বাস জন্মে যে আমরা জিততে পারি।”
যে মানসিকতার শক্তিতে বাংলাদেশ ঘরের মাঠে হারিয়ে দেয় ইংল্যান্ডের মতো দলকে। শ্রীলঙ্কাকে হারিয়ে আসে তাদেরই মাঠে। শ্রীলঙ্কায় শততম টেস্ট ম্যাচটি জিতলেও বিদেশের মাটিতে টাইগারদের পারফরম্যান্স নিয়ে প্রশ্ন উঠতেই পারে, তবে ঘরের মাঠের বাংলাদেশকে নিয়ে কারও মনে কোনও সংশয় থাকার কথা নয়। যদি থেকেও থাকে, সেটা পরিষ্কার করে দিয়েছেন সাকিব, ‘এটা ছিল অনেক লম্বা পথ। অসাধারণ এক ভ্রমণ। আমার মনে হয় না খুব বেশি মানুষ, আরও স্পষ্ট করে বললে বাংলাদেশের খুব বেশি মানুষ ভেবেছে আমরা এখানে আসতে পারব।’ এরপরই বললেন আসল কথাটা, ‘নিজেদের ক্ষমতা ও আত্মবিশ্বাস দিয়ে আমরা এখানে এসে পৌঁছেছি। নিজেদের ওপর বিশ্বাসের কোনও কমতি নেই আমাদের। এখন আমরা অনুভব করি, আমরা ঘরের মাঠে খুব বেশি অপ্রতিরোধ্য- আর সেটা যে দলের বিপক্ষেই খেলি না কেন।’ দ্য গার্ডিয়ান,বাংলা ট্রিবিউন