ঘূর্ণিঝড় ডেবির প্রভাবে কুইন্সল্যান্ডে বন্যা, স্কুল বন্ধ

আপডেট: মার্চ ৩১, ২০১৭, ১২:৩৯ পূর্বাহ্ণ

সোনার দেশ ডেস্ক



অস্ট্রেলিয়ায় ঘূর্ণিঝড় ডেবির প্রভাবে ব্যাপক বৃষ্টিপাতের পর দক্ষিণ-পূর্ব কুইন্সল্যান্ডে বন্যা দেখা দেয়ায় ওই এলাকার সব স্কুল বন্ধ করে দেয়া হয়েছে।
বিবিসি জানিয়েছে, দুই দিন ধরে কুইন্সল্যান্ডের উত্তর-পূর্ব উপকূলীয় এলাকগুলোতে তা-ব চালানোর পর বৃহস্পতিবার রাজ্যটির সবচেয়ে ঘনবসতিপূর্ণ এলাকায় আঘাত হেনেছে অপেক্ষাকৃত দুর্বল ক্রান্তীয় ঝড়ে পরিণত হওয়া ডেবি।
ডেবির প্রভাবে কুইন্সল্যান্ডের রাজধানী ব্রিসবেনে মাত্র দুই ঘন্টায় ২০০ মিলিমিটার বৃষ্টিপাত হয়েছে, যা এক মাসের গড় বৃষ্টিপাতের চেয়েও অনেক বেশি।
এ পর্যন্ত কোনো হতাহতের খবর পাওয়া যায়নি, তারপরও কর্তৃপক্ষ এক হাজারেরও বেশি স্কুল বন্ধ ঘোষণা করে লোকজনকে ঘরে থাকার পরামর্শ দিয়েছে।
কুইন্সল্যান্ডের প্রিমিয়ার আনাস্তাসিয়া পালাসে বলেছেন, “দক্ষিণ-পূর্বাঞ্চলে এই আবহাওয়ার সবচেয়ে খারাপ রূপ দেখিনি আমরা।”
অ্যাগনেস ওয়াটার থেকে কুলানগাতা পর্যন্ত প্রায় ৬০০ কিলোমিটার এলাকার সব স্কুল অন্তত সোমবার পর্যন্ত বন্ধ থাকবে বলে জানিয়েছেন তিনি। ১,২০০শরও বেশি শিশু নিকেতনও বন্ধ রাখা হয়েছে বলে সরকারি ওয়েবসাইট সূ্ত্ের জানা গেছে।
বন্যার পানিতে আটকা পড়া বহু মানুষকে উদ্ধারের কথা জানিয়ে কর্তৃপক্ষ লোকজনকে রাস্তায় বের না হওয়ার ও দোকানপাট বন্ধ রাখার অনুরোধ জানিয়েছে। খুব বেশি কেউ আহত না হওয়াকে ‘অসাধারণ’ বলে অভিহিত করেছেন কুইন্সল্যান্ডের দমকল বিভাগের কমিশনার ক্যাটারিনা ক্যারল, তবে এসবের মধ্যেও একজনকে জেট স্কিতে দেখে তার সমালোচনা করেছেন তিনি।
বলেছেন, “আমরা সবচেয়ে বেশি যা নিয়ে শঙ্কিত তা হচ্ছে লোকজনের এসব বোকার মতো কাজ, এসব ক্ষেত্রেই শোচনীয় ঘটনাগুলো ঘটে। অনুগ্রহ করে আপনাদের শিশুদের ড্রেন থেকে দূরে রাখুন এবং ঘরে অবস্থান করুন।”
অষ্ট্রেলিয়ার আবহাওয়া ব্যুরো জানিয়েছে, দক্ষিণ-পূর্ব কুইন্সল্যান্ডের কিছু অংশে বৃহস্পতিবার ৪০০ মিলিমিটারেরও বেশি বৃষ্টিপাত হতে পারে।
রাজ্যটির বিভিন্ন সরকারি কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, ঘূর্ণিঝড় ডেবির কারণে ৬১ হাজার বাড়ি বিদ্যুৎহীন রয়েছে এবং বিভিন্ন ভবন, আখ ও টমেটো ফসলের ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে।- বিডিনিউজ