চলতি বছরেই তানোরকে মাদকমুক্ত ঘোষণার আশ্বাস

আপডেট: জুলাই ২৭, ২০১৭, ১২:৫৮ পূর্বাহ্ণ

তানোর পৌর প্রতিনিধি


মাদক ব্যবসায়ীদের ফুল দিয়ে শুভেচ্ছা জানান প্রশাসনের কর্তাব্যক্তিরা-সোনার দেশ

‘পুলিশই জনতা, জনতায় পুলিশ’ স্লোগানকে সামনে রেখে জঙ্গিবাদ, মাদক ও বাল্যবিয়েবিরোধী সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে। গতকাল বুধবার বিকেলে উপজেলার পাঁচন্দর ইউনিয়ন কমিউনিটি পুলিশের আয়োজনে যোগিশো মিশনপাড়া গীর্জায় সমাবেশটি অনুষ্ঠিত হয়।
সভায় তানোর ও গোদাগাড়ীর সিনিয়র সার্কেল এএসপি একরামুল হক প্রধান অতিথির বক্তব্যে জঙ্গিবাদ ও মাদকের কুফল সম্পর্কে আলোচনা করেন। তিনি বলেন, জঙ্গিবাদ শুধু বাংলাদেশের সমস্যা নয়। সারা বিশ্ব জঙ্গিবাদকে নিয়ে হুমকির মধ্যে রয়েছে। গত মাসে তানোর থেকে ৮ জঙ্গি কে আটক করা হয়েছে। আপনাদের পাড়ায় বা এলাকায় অপরিচিত লোক দেখলে অবশ্যই প্রশাসনকে অবহিত করবেন।
তিনি আরো বলেন, মাদক সমাজে ভয়াবহ রূপ ধারণ করেছে। কোন ধর্মে নেই মাদক সেবন করতে হবে। মাদক সেবনকারীর পরিবারে সুখ-শান্তি থাকে না। অশান্তি লেগেই থাকে। মাদকের ছোবল থেকে আপনাদেরকে বেরিয়ে আসতে হবে। আপনাদের ছেলেমেয়েরা যারা শহরে লিখাপড়া করেন তাদের বিষয়ে প্রতিনিয়ত খোঁজখবর রাখতে হবে।
তিনি বলেন, কোন ক্রমেই যাতে যুব সমাজ মাদক ও জঙ্গিবাদে জড়িয়ে না পড়ে। সে বিষয়ে আপনাদেরকে দৃষ্টি রাখতে হবে। বাল্যবিয়ে ও যৌন হয়রানি সমাজের আরেক ব্যাধী। এইসব দূর করতে হলে প্রশাসনকে ব্যাপকভাবে সহায়তা করতে হবে আপনাদের।
এমনকি পারিবারিবভাবে সচেতনতা নিয়ে আসতে হবে। তাহলেই ২০১৭ সালের মধ্যেই তানোর উপজেলাকে মাদকমুক্ত ঘোষণা করা যাবে। সেই মিশন নিয়ে পুলিশ প্রশাসন কাজ করছে। এজন্য চাই আপনাদের সহযোগিতা। এসময় স্বাগত বক্তব্য দেন তানোর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) রেজাউল ইসলাম।
উপজেলার পাঁচন্দর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আবদুল মতিনের সভাপতিত্বে সভায় বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য দেন মুন্ডুমালা উচ্চবিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক কামিল মার্ডী, মুন্ডুমালা পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের ইনচার্জ (আইসি) সিদ্দিকুর রহমান, থানার উপপরিদর্শক সাইফুল ইসলাম, শহিদুল ইসলাম প্রমুখ।
মুন্ডুমালা গির্জার ফাদার প্যাট্রিক সরেনের উপস্থাপনায় যোগিশো মিশনপাড়ার ৩১ জন মাদক বিক্রেতা ও সেবনকারী মাদক ছেড়ে স্বাভাবিক জীবনে ফিরে আসার শপথ করেন। এসময় তাদেরকে শপথ বাক্য পাঠ করান সভার প্রধান অতিথি সিনিয়র এএসপি একরামুল হক। এছাড়াও অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি ও বিশেষ অতিথিবৃন্দ তাদেরকে ফুল দিয়ে বরণ করে নেন।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ