চলন্ত বাসে মাথা বের করায়

আপডেট: জুন ২৪, ২০১৭, ১:২০ পূর্বাহ্ণ

সোনার দেশ ডেস্ক


আবুল হাশেম (২১)। ঈদের কেনাকাটা করতে বন্ধুর সঙ্গে প্রজাপতি বাসে উত্তরা যাচ্ছিলেন। বাসটি মিরপুরের ২ নম্বর সেকশনের একটি ফুটওভার ব্রিজের নিচে পৌঁছালে জানালা দিয়ে মাথা বের করেন হাশেম। এ সময় বিপরীত দিক থেকে আসা আরেকটি প্রজাপতি বাসের সঙ্গে মাথা লেগে গুরুতর আহত হন তিনি। পরে তিনি মারা যান।
শুক্রবার সকাল ১০টার দিকে এ ঘটনা ঘটে। আহত অবস্থায় তাকে উদ্ধার করে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে নিয়ে এলে দুপুর ১২টায় কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।
জানা গেছে, হাশেম তেজগাঁও পলিটেকনিক ইনস্টিটিউটের কম্পিউটার সায়েন্সের দ্বিতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী। তিনি ঢাকার কেরানীগঞ্জের বাটারাকান্দি গ্রামের হোসেন আলীর ছেলে। মিরপুর মধ্যপাইকপাড়া এলাকার একটি বাসায় তিনি তার পরিবারের সঙ্গে থাকতেন। দুই ভাই এক বোনের মধ্যে হাসেম ছিল মেঝো।
হাসেমের বড় ভাই আবুল কাশেম জানান, ঈদের কেনাকাটা করতে উত্তরায় যাচ্ছিল সে। এজন্য সে ও তার বন্ধু মিরপুর বাংলা কলেজের সামনে থেকে প্রজাপতি পরিবহনে ওঠে। হাশেম জানালার পাশে বসেছিল। চলন্ত বাসে হাশেম জানালা দিয়ে মাথা বের করে রাখে এবং বাসটি মিরপুর ২ সেকশনের ফুট ওভার ব্রিজের নিচে এলে বিপরীত দিক থেকে আসা প্রজাপতি পরিবহনের অপর একটি বাস তার মাথায় ধাক্কা দেয়। এতে গুরুতর আহত হলে ঢামেক হাসপাতালে নিয়ে আসা হয়। পরে চিকিৎসকরা তাকে মৃত ঘোষণা করেন।
বিষয়টি নিশ্চিত করে ঢামেক হাসপাতাল পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ উপ-পরিদর্শক বাচ্চু মিয়া জানান, ময়নাতদন্ত শেষে নিহতের লাশ পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হবে।
তথ্যসূত্র: রাইজিংবিডি