চাঁদার টাকা না পেয়ে বাবা-ছেলেকে পিটিয়ে জখম

আপডেট: জুন ১২, ২০১৭, ১২:৫৮ পূর্বাহ্ণ

নওগাঁ প্রতিনিধি


নওগাঁর পল্লিতে এক লাখ ৩০ হাজার টাকা চাঁদা দাবি করে না পেয়ে বাবা ও ছেলেকে পিটিয়ে জখম করেছে দুর্বৃত্তরা। গত শনিবার সন্ধ্যায় নওগাঁর মান্দা উপজেলা গোবিন্দপুর গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। আহত বাবা ও ছেলেকে বর্তমানে গুরুত্বর আহত অবস্থায় নওগাঁ সদর হাসপাতালে ভর্তি রয়েছে।
সন্ত্রাসী হামলার শিকার হায়দার আলী জানান, শনিবার সন্ধ্যার আগ মুহূর্তে জাহাঙ্গীর আলম, সৌখিন উদ্দিন, আবদুস সালাম তাছির উদ্দিনসহ একদল ব্যক্তি আমার কাছে এসে চাঁদা দাবির এক লাখ ৩০ হাজার টাকা চায়। আমি টাকা দিতে অপারগতা প্রকাশ করলে তারা আমাকে বেপরোয়াভাবে লোহার রড দিয়ে পেটাতে থাকে। এসময় আমার ছেলে আমাকে বাঁচানোর চেষ্টা করলে তাকের পিটিয়ে জখম করে।
সন্ত্রসী কায়দার এ মারপিটে হায়দার আলীর মাথায় কেটে যায় এবং দাত ভেঙে যায়। এছাড়া তার ছেলে জিল্লুর রহমানের বুকে এলোপাথাড়ি লাথি মারে। ফলে তার বুকের কাটি ভেঙে গেছে। বর্তমানে নওগাঁ সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন তারা।
হাসপাতালের দায়িত্বরত আরএম ও ডা. মো. মনির আলী জানান, রোগিদের অবস্থা আশঙ্কাজনক ছিল। তবে এখন কিছুটা উন্নতির দিকে।
আহত হায়দার আলী আরো জানান, আসামিরা ইতোপূর্বে গত ৮ মে তার খেতের কলাগাছ কেটে নষ্ট করে এবং পাকা কলার ১১ টি কাঁধ কেটে নিয়ে যায়। এ ব্যাপারে গত ১১ মে মান্দা থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। এ মামলার জের ধরে এবং চাঁদা না পাওয়ায় শনিবার এ হামলা চালায় বলে তিনি উল্লেখ করেন।
জানতে চাইলে মান্দা থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আনিসুর রহমান বলেন, এ ঘটনায় অভিযোগ পেলে ব্যবস্থা নেব। আসামি যেই হোক না কেন তাদের আইনের আওতায় নিয়ে আসা হবে।