চাঁদা দাবি করে রাবির চার শিক্ষককে হুমকি

আপডেট: অক্টোবর ১৪, ২০১৬, ১১:৪২ অপরাহ্ণ

রাবি প্রতিবেদক
রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের বাংলা বিভাগের চার শিক্ষককে চাঁদা দাবি করে হুমকি দেওয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে। এদের মধ্যে তিনজন শিক্ষককে একই নাম ব্যবহার করে চাঁদা দাবি করা হয়েছে। হুমকিপ্রাপ্তরা হলেন, বাংলা বিভাগের সভাপতি অধ্যাপক অমৃতলাল বালা, অধ্যাপক মিজানুর রহমান খান, অধ্যাপক সফিকুন্নবী সামাদী ও সহকারী অধ্যাপক শামসুন নাহার। এদের মধ্যে অধ্যাপক সফিকুন্নবী সামাদী ছাড়া বাকি তিনজন থানায় সাধারণ ডায়েরি করেছেন।
অধ্যাপক মিজানুর রহমান খান জানান, গত ১১ অক্টোবর দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে একটি ভারতীয় নম্বর (৯১৮০১৭৮২২৭২৫) থেকে একটি ফোন আসে। ফোনকারী নিজেকে সুব্রত বাইন পরিচয় দিয়ে আমার কাছে চার লাখ টাকা দাবি করেন। ওই টাকা দিতে অস্বকৃতি জানালে সুব্রত বলে, ‘রাজশাহীতে আমাদের দলের লোকজন আছে। আপনি টাকা না দিলে মূহুর্তের মধ্যেই আপনার সবকিছু তছনছ হয়ে যাবে।’
সহকারী অধ্যাপক শামসুন নাহার জানান, গত ৬ অক্টোবর সকালে তাকেও একই নম্বর থেকে, একই নামে ফোন করে চাঁদা চাওয়া হয়। টাকা না দিলে পরিবারের সদস্যদের অপহরণ করার হুমকি দেওয়া হয়।
শামসুন নাহারকে হুমকি দেওয়ার কিছুক্ষণ পরই একই নম্বর থেকে বাংলা বিভাগের আরেক অধ্যাপক সফিকুন্নবী সামাদীকে ফোন করেন সুব্রত বাইন। অধ্যাপক সফিকুন্নবী সামাদী বলেন, আমি বিষয়টি বুঝতে পেরে ফোন রেখে দিই।
এদিকে পরোক্ষভাবে চাঁদা দাবি করা হরেছে জানিয়ে অধ্যাপক অমৃতলাল বালা বলেন, ‘গত ১০ অক্টোবর সুশান্ত নামে একজন আমাকে ফোন দেয়। সে নিজেকে দুদক কর্মকর্তা দাবি করে। আমার বিরুদ্ধে মামলা হবে এ মর্মে নাকি দুদকে অভিযোগ গেছে। সে আমাকে বলে, ‘আমি (সুশান্ত) স্বাক্ষর করলে আপনার বিরুদ্ধে মামলা চালু হবে। এখন আপনি কী করবেন।’ পরে আমি থানায় একটি জিডি করেছি।’
এ বিষয়ে মতিহার থানার ওসি হুমায়ুন কবীর বলেন, ‘শিক্ষকদের হুমকির ঘটনায় থানায় জিডি করা হয়েছে। হুমকি ভারতীয় নম্বর থেকে এসেছে, তাই বিষয়টি জটিল হয়ে গেছে। আমরা গুরুত্ব সহকারে দেখছি।’

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ