চাঁপাইনবাবগঞ্জে পুলিশ কনস্টেবলসহ সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ৪, আহত ১৪

আপডেট: মে ১৬, ২০২১, ৮:৫১ অপরাহ্ণ

নাচোল প্রতিনিধি:


চাঁপাইনবাবগঞ্জে চারদিনে সড়ক দুর্ঘটনায় এক পুলিশ কনস্টেবলসহ চারজনের মৃত্যু হয়েছে। আর আহত হয়েছে ১৪ জন।
নাচোলে শনিবার (১৫ মে) সকাল সাড়ে ৮ টার দিকে ট্রাক ও ধানকাটা শ্রমিকবাহী ভুটভুটির সংঘর্ষে নিহত ৩ জন ও আহত ৭ জন। নাচোল ফায়ারসার্ভিস কর্মীরা আহতদেরকে উদ্ধার করে নাচোল উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করেছে। ১৫ মে শনিবার সকাল সাড়ে ৮টার দিকে দুর্ঘটনা ঘটে।
নাচোল উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের চিকিৎসক আব্দুল বারেক জানান, শনিবার সকাল ৯টার দিকে ফায়ার সার্ভিস কর্মীরা সড়ক দুর্ঘটানায় আহত ১০ জনকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে আসে। তার মধ্যে ৩ জনকে তারা মৃত অবস্থায় পেয়েছেন এবং আহত ৭ জনের মধ্যে ৪ জনের অবস্থা আশঙ্কাজনক হওয়ায় উন্নত চিকিৎসার জন্য তাদেরকে রাজশাহী মেডিকেলে রেফার্ড করা হয়েছে।
প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, ধানবোঝাই দ্রুতগতির ট্রাকটি আড্ডা থেকে নাচোল অভিমুখে যাচ্ছিল এবং গোমস্তাপুর থেকে ছেড়ে আসা ধানকাটা শ্রমিক বোঝাই ভুটভুটি সোনাইচন্ডী-ধানসুরা হয়ে নিয়ামতপুরের দিকে যাচ্ছিল। নাচোলে নিহতরা হচ্ছে, চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলার গোমস্তাপুর উপজেলার চৌডালা ইউনিয়নের নন্দলাল গ্রামের-রেজাউল করিম (৪৫), আব্দুল মালেক (৪০) ও লিটন (২৫)। আহতরা হচ্ছে-তসিকুল (২০), জাহিদুল (২০), সাহারুল (৪০), আব্দুল মান্নান (৫০), বুলবুল (৪০), আলাউদ্দিন (২৫) ও বশির (৪০)।
ঘটনাস্থলে উপস্থিত থাকা নাচোল থানার অফিসার ইন্চার্জ (তদন্ত) আব্দুল অহাব ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, দুর্ঘটনার কারণ চিহ্নিত ও প্রত্যক্ষদর্শীদের জিজ্ঞাসাবাদের কাজ চলছে। তিনি আরও জানান নিহত ও আহতরা সবাই একই এলাকার।
এদিকে চাঁপাইনবাবগঞ্জে সড়ক দুর্ঘটনায় তৌহিদুল ইসলম (২৬) নামে এক পুলিশ কনস্টেবলের মৃত্যু হয়েছে। এতে আহত হয়েছেন সাতজন। বৃহস্প্রতিবার (১৩ মে) সন্ধ্যায় চাঁপাইনবাবগঞ্জ সদর উপজেলার মহারাজপুর মেলার মোড়ে এ দুর্ঘটনা ঘটে। নিহত পুলিশ সদস্য মহারাজপুরের ভাগ্যবান এলাকার সেন্টু হালদারের ছেলে। তৌহিদ রাজশাহীর জেলা দায়রা জজের দেহরক্ষী হিসেবে কর্মরত ছিলেন।
চাঁপাইনবাবগঞ্জ সদর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোজাফফর হোসেন জানান, মহারাজপুরের মেলার মোড়ে রিকশাকে সাইড দিতে গিয়ে একটি মাইক্রোবাস নিয়ন্ত্রণ হারালে মাইক্রোবাসের যাত্রী তোহিদুলসহ সাতজন গুরুতর আহত হন। এ অবস্থায় আহতেদর উদ্ধার করে সদর আধুনিক হাসপাতালে ভর্তি করেন। পরে সন্ধ্যা ৭টার দিকে কর্তব্যরত চিকিৎসক তৌহিদ কে মৃত ঘোষণা করেন। এ সময় একই এলাকার কামরুল ইসলামের ছেলে রুবেলসহ (২৫) ছয়জন আহত হলে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আছেন।
ওসি আরও জানান, স্থানীয়রা খবর দিলে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে মাইক্রোবাসটি জব্দ করে। মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্ত শেষে লাশ পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। দোষীদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে।