চাঁপাইনবাবগঞ্জে শহীদ মিনারে সাংসদের সঙ্গে আলবদর নেতার পুষ্পস্তবক অর্পণ

আপডেট: ডিসেম্বর ১৮, ২০১৬, ১২:১০ পূর্বাহ্ণ

চাঁপাইনবাবগঞ্জ অফিস


চাঁপাইনবাবগঞ্জে মহান বিজয় দিবসে এবার সদর আসনের সাংসদ আবদুল ওদুদের সঙ্গে শহীদ মিনারে পুষ্পস্তবক অর্পণ করেছেন ৭১ এর আলবদর নেতা ও জামায়াতের সাবেক সূরা সদস্য মাওলানা সোহরাব আলী। পরে জেলা শহরের প্রাণকেন্দ্র প্রেসক্লাব এলাকায় অবস্থিত বঙ্গবন্ধু চত্ত্বরে জাতির জনকের প্রতিকৃতিতেও ফুলেল শুভেচ্ছা জানান এই আলবদর নেতা।
এসময় সাংসদ আবদুল ওদুদ ও জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মুক্তিযোদ্ধা মঈনুদ্দীন মন্ডলসহ আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন। এনিয়ে স্থানীয় আওয়ামী লীগ ও মুক্তিযোদ্ধাদের মধ্যে ব্যাপক প্রতিক্রিয়ার সৃষ্টি হয়েছে। গত শুক্রবার বিজয় দিবসে সকাল ৮টায় নবাবগঞ্জ সরকারি কলেজ মাঠে অবস্থিত শহীদ মিনার এবং পরে বঙ্গবন্ধু চত্ত্বরে জাতির জনকের প্রতিকৃতিতে দলের পক্ষে ফুলেল শ্রদ্ধা জানান জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক স্থানীয় সাংসদ ও জেলা আওয়ামী লীগ নেতৃবৃন্দ। এসময় সাংসদ আবদুল ওদুদের পাশে ছিলেন সদর উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান ৭১ এর আলবদর নেতা ও জামায়াতের সাবেক সূরা সদস্য মাওলানা সোহরাব আলী।
মুক্তিযোদ্ধা নোমান আলী জানান, এ ধরণের ঘটনা খুবই দুঃখজনক। গত বছর বীরশ্রেষ্ঠ শহীদ ক্যাপ্টেন জাহাঙ্গীর এর শাহাদৎ বার্র্ষিকীতে সোহরাব মাওলানাকে বক্তব্য দেয়ার জন্য মাইকে নাম ঘোষণা করা হয়েছিল। তখন উপস্থিত মুক্তিযোদ্ধারা তীব্র প্রতিবাদ করলে তাকে আর বক্তব্য দিতে দেয়া হয় নি।
সেক্টর কমান্ডার ফোরামস চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা শাখার সভাপতি অ্যাডভোকেট আবদুস সামাদ ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, এসব স্বাধীনতা বিরোধীরা শহীদ বুদ্ধিজীবী ও শহীদ মুক্তিযোদ্ধাদের সঙ্গে ঠাট্টা মসকরা শুরু করেছে। মুক্তিযদ্ধের স্বপক্ষের শক্তি এখন রাষ্ট্র পরিচালনা করছে অথচ বিভিন্ন সভা সমাবেশে মুক্তিযোদ্ধা ও আওয়ামী লীগ নেতাদের বাদ দিয়ে জামায়াত ও আলবদর নেতাদের মঞ্চে জায়গা করে দেয়া হচ্ছে। আবার তাদেরই বক্তৃতা দিতে দেয়া হচ্ছে। আমরা এসব কর্মকা-কে ঘৃণা করি।
এ ব্যাপারে সদর আসনের সাংসদ আবদুল ওদুদের সঙ্গে বার বার চেষ্টার পরেও যোগাযোগ করা সম্ভব হয় নি। তবে জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মঈনুদ্দীন মন্ডল জানান, মাওলানা সোহরাব আলী তার সঙ্গে ছিলেন না। তিনি পরে এসে তাদের পাশে দাঁড়িয়েছিলেন। সকালে তিনি শহীদ মিনারে ফুলে দিয়েছে, আমার সঙ্গে আসে নি, সাংসদের সঙ্গে এসেছে। তাই এসব বিষয়ে আমি কিছু বলতে পারবো না। এছাড়া এ ধরনের কাজে আমার কোন নজিরও নাই।
গত ১ অক্টোবর জেলা শিল্পকলা একাডেমি মিলনায়তনে চাঁপাইনবাবগঞ্জ সদর আসনের সাংসদ আবদুল ওদুদ এর হাত ধরে আওয়ামী লীগে যোগ দেন আলবদর নেতা ও একাধিক নাশকতা মামলার আসামি মাওলানা সোহরাব। এনিয়ে পত্রপত্রিকায় খবর প্রকাশিত হলে সারাদেশে তোলপাড় সৃষ্টি হয়। জামায়াত নেতা মাওলানা সোহরাব আলীর বিরুদ্ধে চাঁপাইনবাবগঞ্জ সদর মডেল থানায় হত্যা, বাসে অগ্নিসংযোগ, পুলিশের ওপর হামলা, সরকারি কাজে বাধা ও নাশকতাসহ একাধিক মামলা রয়েছে।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ