চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলার সেরা বীজ উৎপাদন উদ্যোক্তা হলেন কৃষক আতাউর

আপডেট: মার্চ ২২, ২০২১, ৯:৪৪ অপরাহ্ণ

সংবাদ বিজ্ঞপ্তি:


কৃষক পর্যায়ে উন্নতমানের ডাল, তেল ও মসলা বীজ উৎপাদন, সংরক্ষণ ও বিতরণ প্রকল্প (৩য় পর্যায়) স্থানীয় পর্যায়ে উদ্যোক্তা হিসেবে চাঁপাই নবাবগঞ্জ জেলার সেরা উদ্যোক্তা হিসেবে প্রথম পুরস্কার লাভ করেছে নাচোল উপজেলার কৃষক মো. আতাউর রহমান। গত রোববার (২১ মার্চ) চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলার কৃষি সম্প্রসারণ অধিদফতরের আয়োজনে জেলা কৃষি প্রশিক্ষণ হলরুমে এই পুরস্কার গ্রহণ করে। জেলার ৪৯ জন বীজ উদ্যোক্তা হতে আতাউর রহমান ভালো মানের বীজ উৎপাদন ও বাজারজাত করতে সক্ষম হওয়ায় তাকে পুরস্কৃত করা হয়।
এই সময় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, চঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা খামারবাড়ী উপমহাপরিচালক নজরুল ইসলাম। এছাড়াও প্রশিক্ষণ অফিসার ড. বিমল কুমার প্রামাণিক, চঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা খামারবাড়ী (শষ্য) অফিসার একেএম মুঞ্জুর এ- মাওলা, বীজ প্রত্যায়ন অফিসার পলাশ সরকার, চঁপাইনবাবগঞ্জ জেলার উপজেলার কৃষি অফিসার কানিজ তাস নোভা প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।
জানা গেছে, সরকার বিভিন্ন বীজ বিএডিসি হতে ক্রয় করে এতে করে সময়মত ভালো মানের বীজ পাওয়া সম্ভব হয় না। তাই দেশের প্রতিটি উপজেলার প্রত্যেকটি ইউনিয়নে এসএমই প্রকল্পের উদ্যোক্তা তৈরি করছে। প্রকল্পের উদ্দেশ্য স্থানীয় পর্যায়ে বীজ চাহিদা মেটানো ও কৃষি অফিস তাদের নিকট হতে বীজ ক্রয় করে নেয়া। এসব উদ্যোক্তাদের সরকার হতে বীজ সংরক্ষণ পাত্র, ওজন মেশিন , প্যাকেট করার জন্য অটোমেটিক সেলাই মেশিন, আদ্রতা পরিমাপক যন্ত্র, বীজ বিক্রয়ের জন্য কৃষি সম্প্রসারণের লোগো যুুক্ত প্যাকেটসহ বিভিন্ন জিনিস দিয়ে সহযোগিতা করছে।
নাচোল উপজেলার কৃষি কর্মকর্তা বুলবুল আহমেদ বলেন, জেলার প্রত্যেক ইউনিয়নে উন্নত মানের ডাল, তেল ও মসলা বীজ উৎপান করে বিক্রয়ের জন্য যারা ভালো করেছে তাদের কে এই পুরস্কার দেয়া হয়েছে। জেলার ৪৯ জন উদ্যোক্তার মধ্যে হতে কৃষক আতাউর সেরা হওয়ায় তাকে এই পুরস্কৃত করা হয়েছে বলে জানান।
কৃষক আতাউর রহমান বলেন, আমি ব্যবসার পাশাপাশি প্রায় তিন বছর হতে মসলা জাতীয় বীজ উৎপান করে আসছি। সরকার আমাদের প্রকল্পের আওতায় বীজ উৎপাদনে উদ্যোক্তা তৈরি হিসেবে সহযোগিতা করলে তাতে সারা দিয়ে ভালো বীজ উৎপান ও বাজারজাত করতে সক্ষম হয়েছি তাই জেলার শ্রেষ্ঠ বীজ উৎপান উদ্যোক্ত হিসেবে পুরস্কার পাওয়াতে আমার খুব ভালো লাগছে বলে জানান।