চারঘাটে অবৈধ ইট ভাটা বন্ধের দাবি

আপডেট: জানুয়ারি ১৩, ২০১৭, ১২:১৪ পূর্বাহ্ণ

চারঘাট প্রতিনিধি


রাজশাহীর চারঘাট উপজেলার শলুয়া ইউনিয়নের শবপুর শিশিতলা গ্রামে অবৈধভাবে ও নিষেজ্ঞা অমান্য করে চারটি ইটভাটা চলছে। ইটভাটার ধোঁয়ায় শুধু পরিবেশের মারাত্মক ক্ষতি করছে। নষ্ট হচ্ছে আম বাগানসহ ফলজ গাছ ও মৌসুমি ফসল।
গতকাল বৃহস্পতিবার সকালে উপজেলার শিবপুর লালমনিতলা আমবাগান চত্বরে শলুয়া ইউনিয়নের ৯ নম্বর ওয়ার্ডের শিবপুর শিশিতলা এলাকাবাসী আম ও ফসলি জমি রক্ষায় ইটভাটা বন্ধের দাবিতে এবং মিথ্যা হয়রানিমূলক মামলার প্রতিবাদে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে এসব কথা বলা হয়। সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে ৯ নম্বর ওয়ার্ডের স্থানীয় বাসিন্দা আবদুস ছালাম বলেন, অবৈধভাবে ও সরকারের নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে শলুয়া ইউনিয়নে চারটি ইটভাটা স্থাপন করেন ছুইমুদ্দিন।
গত ৭ ডিসেম্বর ইটভাটা বন্ধের জন্য রাজশাহী বিভাগীয় কমিশনার, সচিব বন ও পরিবেশ মন্ত্রণালয় এবং  উপজেলা নির্বাহী অফিসে আবেদন করা হয়। ইটভাটার ধোঁয়ায় শুধু পরিবেশ নয়, ইটভাটা সংলগ্ন সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা স্বাস্থ্যঝুঁকির মধ্যে রয়েছেন। এ বিষয়ে রাজশাহী জজ কোর্টের লিগ্যাল নোটিশের মাধ্যমে ইট ভাটার মালিক ছইমুদ্দিন মন্ডল তিনশত টাকার নন জুডিশিয়াল স্টাম্পে অঙ্গিকার করেন যে, ইট ভাটার কার্যক্রম ভবিষ্যতে চালু করবেন না। এরপর তারা আবার  ইট ভাটা চালু করলে তাদের বিরুদ্ধে পরিবেশ দূষনের অভিযোগে আইনানুগ  ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে। স্বাক্ষরকারী অন্য দুই ইটভাটার মালিক হলেন মন্তাজ আলী এবং আলী হোসেন।
তিনি আরো বলেন, গত ২২ ডিসেম্বর জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আমলী আদালতে উপজেলা দিঘলকন্দী (সৃপার) ইট ভাটার মালিক ছইমুদ্দিন মন্ডল বাদি হয়ে মজের উদ্দিন, আইনুদ্দিন, আব্দুল কুদ্দুসসহ গ্রামবাসীর নামে মামলা দায়ের করেন। সংবাদ সম্মেলনে  প্রশাসনকে সঠিকভাবে  তদন্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়ার জন্য দাবি জানান হয়। সংবাদ সম্মেলনে আরো উপস্থিত ছিলেন, আনোয়ার হোসেন, আইনুদ্দিন, আব্দুল কুদ্দুস মন্ডল, মজের আলী (মেম্বার), আজাম্মেল এবং আকবর আলীসহ স্থানীয়রা। সংবাদ সম্মেলনের পূর্বে ইট ভাটা বন্ধের দাবীতে ও মিথ্যা মামলার প্রতিবাদে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ