চারঘাটে গমের বাম্পার ফলনের সম্ভাবনা

আপডেট: মার্চ ১৮, ২০১৭, ১২:৩৬ পূর্বাহ্ণ

নজরুল ইসলাম বাচ্চু, চারঘাট


রাজশাহীর চারঘাটে চলতি রবিশস্য মৌসুমে গমের ভালো ফলনের সম্ভবনা রয়েছে। খরচ কম লাভ বেশি হওয়ায় বোরো ধান চাষের আগ্রহ কিছুটা কমিয়ে গম চাষের দিকে ঝুকছে কৃষক। চলতি মৌসুমে কোন প্রকার প্রাকৃতিক দুর্যোগ হানা না দেওয়ায় এবং গম চাষের পরিবেশ অনুকূলে থাকায় গমের পাশাপাশি ভুট্টারও ভালো ফলনের সম্ভবনা রয়েছে।
জানা গেছে, চলতি মৌসুমে উপজেলায় ৫ হাজার ৮৫০ হেক্টর জমিতে গম চাষের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হলেও এ বছর উপজেলায় প্রায় ৬ হাজার হেক্টর জমিতে গমের চাষ হয়েছে। শুরুতেই ভালো আবহাওয়া অনুকূলে থাকা এবং গমের খেতে পোকা-মাকড়ের আনাগোনা না থাকায় ও মাঠপর্যায়ে গম চাষিদেরকে কৃষি অফিসের পক্ষ থেকে যথাসময়ে উপযুক্ত পরামর্শ, নজরদারি ও প্রত্যক্ষ কারিগরী সহযোগিতা দেয়া হয়েছে। এ কারণে গম খেত অনেকটা রোগ-বালাইমুক্ত হওয়ায় ভালো ফলনের আশায় বুক বাঁধছে উপজেলার কৃষকরা।
এদিকে উপজেলা কৃষি সম্প্রসারণ কর্মকর্তা শফিউল্লাহ সুলতান জানান, আমরা মাঠ পর্যায়ে গিয়ে কৃষকদের জমিতে ফসল দেখাশুনা ও বিভিন্ন সমস্যা হলে তাদের পরামর্শ প্রদান করা হয়।
চারঘাট উপজেলার মোক্তারপুর এবং মিয়াপুর গ্রামের আবদুল আজিজ ও রবিউল ইসলাম জানান, এ বছর জমিতে গম চাষ করেছি। খরচ কম লাভ বেশি হওয়ায় এবং চৈত্র মাসে অভাবের সময়ে গম বিক্রি করে বোরো আবাদ করতে কিছুট সহায়ক হবে। গমের গাছে ভালো মানের শীষ দেখা দিয়েছে। কোন প্রকার দুর্যোগ না হলে গমের আশানুরুপ ফলন পাব। দাম ভালো হলে লাভের মুখ দেখবো।
এ বিষয়ে উপজেলা কৃষি অফিসার আবু জাফর মোহাম্মদ সাদেক জানান, এবারে চারঘাটের ছয়টি ইউনিয়নে বিগত বছরের তুলনায় লক্ষ্যমাত্রার চেয়ে বেশি পরিমান জমিতে গম চাষ হয়েছে। যথাসময়ে জমি চাষযোগ্য হওয়ায় এলাকার কৃষকরা সুযোগ বুঝে গম চাষ করেছেন। কৃষি বিভাগের পক্ষ থেকে তাদেরকে যথাযথ পরামর্শ ও পরিচর্চার বিষয়ে দিক নির্দেশনা দেয়া হয়েছে। প্রাকৃতিক দুর্যোগে কোন প্রকার ক্ষতি না হলে চারঘাট উপজেলায় গমের আবাদের ভালো ফলনের সম্ভবনা রয়েছে।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ