চারঘাট পৌর নির্বাচনে অনিয়ম ও হুমকির অভিযোগ বিএনপির প্রার্থীা

আপডেট: ফেব্রুয়ারি ২৬, ২০২১, ৯:৩৭ অপরাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক:


চারঘাট পৌর নির্বাচনে নানা অনিয় সরকরি দলের প্রার্থী ও নেতাকর্মীদের হুমকি, নির্বাচনী প্রচারনায় বাধা, বিএনপি নেতাকর্মীদের নামে মিথ্যা মামলা দিয়ে পুলিশি হয়রানির প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন করেন বিএনপি প্রার্থী। শুক্রবার (২৬ ফেব্রুয়ারি) বিকেল তিনটায় চারঘাট পৌর বিএনপি’র আয়োজনে নগরীর মালোপাড়া অবস্থিত বিএনপির দলীয় কার্যলয়ে সংবাদ সম্মেলন করে চারঘাটের ধানের শীষের প্রার্থী জাকিরুল ইসলাম বিকুল।
এ সময় বক্তব্যে দেন, বিএনপি চেয়ারপার্সনের উপদেষ্টা মিজানুর রহামন মিনু। তিনি অভিযোগ করে বলেন, প্রতিটি পৌর নির্বাচনে এই বিনা ভোটের সরকার জোর করে দলীয় প্রার্থীদের বিজয়ী করেছে। ভোট কেন্দ্র দখল এবং অন্যের ফলাফল সরকারি দলের প্রার্থীর পক্ষে নিয়েছে। এখন আবার চারঘাট ও দূর্গাপুর পৌর নির্বাচন এবং পবা উপজেলা নির্বাচনে একই পন্থা অবলম্বন করার পাঁয়তারা করছে। সরকার দলীয় সংসদ সদস্যরা নির্বাচনী আইন অমান্য করে প্রার্থীর পক্ষে প্রচারণা করছেন। অভিযোগ করেও কোনো লাভ হচ্ছেনা বলে জানান তিনি।
সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন, চারঘাট বিএনপি মনোনীত ধানের শীষের প্রার্থী মোহাম্মদ জাকিরুল ইসলাম বিকুল। তিনি বলেন, ১৩ ফেব্রুয়ারি অনুমানিক সকাল ৭টার সময় চারঘাট বাজারে ধানের শীষের পোস্টার লাগানোর সময়, প্রতিদ্বন্দ¦ী আওয়ামী লীগ মনোনীত নৌকা প্রতিকের প্রার্থীর লোকজন লাঠি, হাঁসুয়া ও অন্যান্য দেশীয় অস্ত্র নিয়ে চারঘাট বাজারে অবস্থান নেয়। এরপরে সকাল সাড়ে ১০টার সময় আমি আমার মায়ের কবর জিয়ারত করে প্রচার প্রচারণার উদ্দেশ্যে নেতাকর্মীসহ চারঘাট বাজারের দিকে রওনা হলে পূর্ব থেকে অবস্থান করা আওয়ামী লীগ মনোনীত নৌকা প্রতিকের প্রার্থীর লোকজন আমার প্রচারণায় বাধা সৃষ্টি করে। এক পর্যায়ে আমার নেতা কর্মীদের ওপর হামলা চালায় তারা। তারা এসময় দেশীয় অস্ত্রের পাশাপাশি ককটেল নিক্ষেপ করে আমাদের নিরস্ত্র নেতা কর্মীদের ছত্রভঙ্গ করে দেয়। এ ঘটনায় উল্টো আমাদের বিরুদ্ধেই বিস্ফোরক আইনসহ দুটি মামলা দায়ের করা হয়। এরপর থেকেই আমার সকল নির্বাচনি কার্যক্রমে তারা বাধা দিচ্ছে। প্রচার কাজে নিয়োজিত মাইক ভেঙ্গে ফেলা হচ্ছে। পোস্টার লাগানোর পরে তা ছিড়ে পুড়িয়ে দেয়া হচ্ছে এবং প্রচার কাজে নিয়োজিত নারী কর্মীদের এলাকায় লিফলেট বিতরণের সময় শারীরিকভাবে নির্যাতন করে ভয়ভীতি প্রদর্শন করা হচ্ছে। একই সাথে তাদের এলাকা থেকে বের করে দেয়া হচ্ছে। আমার পৌর এলাকার সকল নেতা কর্মীদের হুমকি প্রদান ভয়ভীতি প্রদর্শন গ্রেফতারের হুমকি দেয়া হচ্ছে বলে সংবাদ সম্মেলনে অভিযোগ করেন বিকুল।
সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন নগর বিএনপি’র সভাপতি মোসাদ্দেক হোসেন বুলবুল, সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট শফিকুল হক মিলন, জেলা বিএনপি’র আহ্বায়ক আবু সাঈদ চাঁদ, সদস্য সচিব অধ্যাপক বিশ্বনাথ সরকার, বিএনপি নেতা আনোয়ার হোসেন উজ্জল। অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন জেলা বিএনপি’র নেতা গোলাম মোস্তফা মামুন। আরো উপস্থিত ছিলেন বিএনপি নেতা মাহবুব অর রশিদ, নগর যুবদলের সভাপতি আবুল কালাম সুইট ও মহানগর স্বেচ্ছাসেবক দলের সভাপতি জাকির হোসেন রিমন প্রমুখ।