চার মাসের ছোট্ট শিশুকে কোলে নিয়েই ভোট দিলেন সাংসদ মা

আপডেট: ফেব্রুয়ারি ৪, ২০১৭, ১২:০৪ পূর্বাহ্ণ

সোনার দেশ ডেস্ক


মাত্র চার মাস আগে জন্মেছে অ্যালেস্টার। তার মধ্যেই ব্রিটেনের ইতিহাসে অন্যতম অধ্যায়ের সাক্ষি থাকল একরত্তি শিশুটি। বৃহস্পতিবার হাউস অফ কমন্স-এ ছিল ব্রেক্সিট নিয়ে ভোটাভুটি। সেই ভোটে মা তথা নর্থ নরউইচের কনজারভেটিভ দলের এমপি কোল স্মিথের সঙ্গে হাজির ছিল সে-ও। ৩৪ বছরের এই এমপি এতদিন মাতৃত্বকালীন ছুটিতে ছিলেন৷ কিন্তু দেশের সবচেয়ে বড় ইস্যু নিয়ে ভোটে অংশ না নিয়ে থাকতে পারেননি৷ সোজা চলে এসেছিলেন পার্লামেন্টে৷ কিন্তু কোলের শিশুটিকে কোথায় রাখবেন?  তাই সঙ্গে নিয়ে আসেন তাকে৷
এর আগে গত সপ্তাহে স্মিথ জানিয়েছিলেন, দেশের স্বার্থে তিনি ভোট দিতে যাবেন। আর এদিন ছেলেকে সঙ্গে নিয়ে যখন হাউস অব কমন্স-এ প্রবেশ করার সময় স্পিকার জন বারকো-সহ অন্য এমপি-রা তাঁকে স্বাগত জানান৷ বারকো বলেন, ‘আমি স্মিথকে এই নিয়ে বেশি ভাবনা-চিন্তা করতে বারণ করি। তাঁকে জানাই ছোট্ট শিশুটির ভিতরে আসতে অসুবিধার কিছু নেই।’ ভোটিং লবি দিয়ে যাওয়ার সময় প্রধানমন্ত্রী টেরেসা মে-র সঙ্গেও তাঁর সাক্ষাৎ হয়৷ স্পিকারের ঘরে সন্তানকে নিয়েই ভোট দেন স্মিথ৷ পরে বলেন, ‘এই ঘটনাটিকে কে কীভাবে দেখবে, সেটা একান্তই প্রত্যেকের নিজস্ব ব্যাপার, তবে আমার পুত্র ইতিহাসের সাক্ষী হয়ে থাকল৷ ভবিষ্যতে আমি তাকে এই কথাটা বলতে পারব। এজন্য আমি খুব সম্মানিত বোধ করছি৷’ এই প্রথম কোনও শিশু স্পিকারের চেম্বারে ঢুকল বলে জানিয়েছে ব্রিটেনের সংবাদমাধ্যম৷ তবে অনেকে বলছেন, এর আগে লেবার পার্টির এক সদস্য তাঁর সন্তানকে নিয়ে হাউস অব কমেন্স-এ প্রবেশ করেছিলেন।
এদিকে, এদিন ‘ব্রেক্সিট’-এর পথে আরও এক ধাপ এগোল ব্রিটেন৷ ইউরোপীয় ইউনিয়ন থেকে বেরিয়ে আসার ক্ষেত্রে ব্রিটিশ সংসদে যে প্রস্তাব পেশ হয়েছিল, বিপুল সংখ্যাগরিষ্ঠতায় সেটি পাশ হয়েছে৷ শাসক দল কনজারভেটিভ (টোরি) ও প্রধান বিরোধী দল লেবার পার্টির বেশ কয়েকজন এমপি দলীয় হুইপ অমান্য করে প্রস্তাবের বিপক্ষে ভোট দিলেও লাভ হয়নি৷ ফলে ইউরোপীয় ইউনিয়নের সঙ্গে বেরিয়ে আসার জন্য আলোচনা শুরু করতে টেরেসা মে সরকারের আর কোনও বাধা থাকল না৷- সংবাদ প্রতিদিন

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ