চালকদের বিনামূল্যে স্বাস্থ্য পরীক্ষা করালো বিআরটিএ রাজশাহী

আপডেট: অক্টোবর ২৩, ২০২৩, ৮:২০ অপরাহ্ণ


সংবাদ বিজ্ঞপ্তি:


গাড়ি চালকদের বিনামূল্যে স্বাস্থ্য পরীক্ষা করিয়েছে বাংলাদেশ রোড ট্রান্সপোর্ট অথরিটির (বিআরটিএ) রাজশাহী সার্কেল। জেলা প্রশাসন ও জেলার সিভিল সার্জন কার্যালয়ের সহযোগিতায় সোমবার (২৩ অক্টোবর) সকালে বিআরটিএর রাজশাহী সার্কেলের কার্যালয়ে চালকদের স্বাস্থ্য পরীক্ষা করানো হয়।

এ দিন যেসব পেশাজীবী গাড়িচালক নিজেদের ড্রাইভিং লাইসেন্স নবায়ন করতে আসেন তারা বিশেষ এই সেবা পান। এছাড়া তাদের গাড়ি চালানো এবং ট্রাফিক আইন সম্পর্কে রিফ্রেসার প্রশিক্ষণও দেওয়া হয়। জাতীয় নিরাপদ সড়ক দিবস উপলক্ষে এসব কর্মসূচি হাতে নেয় বিআরএটিএর রাজশাহী সার্কেল।

সকালে প্রধান অতিথি হিসেবে এই প্রশিক্ষণ ও স্বাস্থ্য পরীক্ষা কর্মসূচির প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে উদ্বোধন করেন সড়ক পরিবহণ ও মহাসড়ক বিভাগ এর যুগ্ম সচিব (প্রশাসন অধিশাখা) নাজনীন ওয়ারেস, রাজশাহীর অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট সাবিহা সুলতানা, বিআরটিএ রাজশাহী বিভাগের পরিচালক আশরাকুর রহমান, উপ-পরিচালক কামরুল ইসলাম, পুলিশ পরিদর্শক ও বিআরটিএর পরিদর্শক মোঃ মোশাররফ হোসেন। প্রধান অতিথি নাজনীন ওয়ারেস বলেন, অনেকে সুস্থ আছেন ভেবেই হয়তো চিকিৎসকের কাছে যান না। সে জন্য এই স্বাস্থ্য পরীক্ষার ব্যবস্থা করা হয়েছে। সড়কে দুর্ঘটনা কমিয়ে আনা এর লক্ষ্য।

শুভেচ্ছা বক্তব্য দেন বিআরটিএর রাজশাহী সার্কেলের সহকারী পরিচালক (ইঞ্জিনিয়ার) মোঃ আবদুল খালেক। এ সময় সিভিল সার্জনের কার্যালয়ের মেডিকেল অফিসার ডাঃ বায়েজীদ উল ইসলাম সহ একটি চিকিৎসক দল উপস্থিত ছিলেন। তারা বিনামূল্যে গাড়ি চালকদের রক্তচাপ ও ডায়াবেটিস পরীক্ষা করেন। এছাড়া তাদের দৃষ্টিশক্তি পরীক্ষা করে দেখেন চিকিৎসকেরা। এতে অনেকের সমস্যা ধরা পড়ে। আবার কারও কোন সমস্যা নেই বলেও জানান চিকিৎসকেরা। যাদের নানা সমস্যা ধরা পড়ে তাদের চিকিৎসকের পরামর্শ অনুযায়ী চিকিৎসা গ্রহণের কথা বলা হয়। স্বাস্থ্য পরীক্ষায় ও প্রশিক্ষণ কর্মশালায় দুই শতাধিক পেশাদার চালক উপস্থিত ছিলেন।

এখানে স্বাস্থ্য পরীক্ষা করে জেলার পবা উপজেলার বাগধানী গ্রামের বাস চালক মোঃ মনসুর আলী বলেন, ‘ড্রাইভিং লাইসেন্স নবায়ন করতে এসে সড়কের নিয়ম-কানুন নিয়ে একটা রিফ্রেসার প্রশিক্ষণ পেলাম। স্বাস্থ্য পরীক্ষাটাও হয়ে গেল। আসলে নিজে থেকে কখনও এসব পরীক্ষা করা হয়নি। আল্লাহর রহমতে আমার সবকিছুই ভাল আছে। এটা শুনে মানসিকভাবে আমার ভাল লাগছে।’